মঙ্গলবার ১১ই ডিসেম্বর ২০১৮ |
নিরাপদ ভ্রমণের জন্য পরামর্শ

দেশে যাওয়ার আগে প্রবাসীদের করণীয়

গালফ বাংলা |  বৃহঃস্পতিবার ১লা ফেব্রুয়ারি ২০১৮ দুপুর ১২:৪৭:২৮
দেশে

কাতারের দোহায় হামাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ভেতরের ছবি

ছুটি কাটাতে কিংবা যে কোনো জরুরি প্রয়োজনে কাতার থেকে স্বদেশে যান অভিবাসীরা। কেউ বছরে কয়েকবার, আবার কেউ কয়েকবছরে একবার। কাতারে অভিবাসীদের সংখ্যা বাড়ার ফলে হামাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সবসময় সরগরম থাকে। কেউ যাচ্ছে, কেউ আসছে।

কেবল স্বদেশ নয়, বরং অনেকে অবসর কাটাতে অন্য দেশেও ঘুরতে যান কাতার থেকে। তবে যে কারণেই হোক কিংবা যে কোনো জায়গায় হোক, ভ্রমণকালে বেশকিছু বিষয় মনে রাখলে অযথা ভোগান্তি ও বিড়ম্বনা থেকে নিরাপদ থাকতে পারেন ভ্রমণকারী ব্যক্তি।

কোথাও যাওয়ার বেলায় সবার আগে নিশ্চিত হতে হবে, ভ্রমণকারী ব্যক্তির পাসপোর্ট যেন মেয়াদোত্তীর্ণ না হয়ে থাকে। শুধু মেয়াদোত্তীর্ণ না হওয়া নয়, বরং পাসপোর্টের মেয়াদ কমপক্ষে ছয় মাস থাকতে হবে।

যাত্রীর টিকেট সম্পর্কেও নিশ্চিত হওয়া প্রয়োজন। যে এয়ারলাইন্সের টিকেটে ভ্রমণকারী আপন গন্তব্যস্থলে পৌঁছাবেন, সেই এয়ারলাইন্সের টিকেটে উল্লেখিত সময় ও তারিখ যাচাই করে নিতে হবে। কোনো অনিবার্য কারণবশত এয়ারলাইন্সের যাত্রা দেরি বা বাতিল হচ্ছে কিনা, সে ব্যাপারেও খোঁজ নেওয়া প্রয়োজন।

কাতার ত্যাগের প্রাক্কালে অভিবাসী যাত্রী আপন নিয়োগকর্তার কাছ থেকে ভ্রমণের সম্মতি পেয়েছেন কিনা, সেটি সম্পর্কে নিশ্চিত হতে হবে। যে ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের তত্ত্বাবধানে অভিবাসী কর্মরত, সেই কর্তৃপক্ষকে ভ্রমণ সম্পর্কে অবহিত করা প্রয়োজন।

যাত্রাকালে টিকেটে উল্লেখিত ওজনের চেয়ে বেশি মালপত্র নেওয়া কোনোভাবেই উচিত নয়। এর ফলে যাত্রীকে বাড়তি অর্থ পরিশোধ করতে হবে। তাই বিমানবন্দরের উদ্দেশে রওয়ানা হওয়ার আগে সঠিক ওজন পরিমাপক দিয়ে সব মালপত্রের ওজন সম্পর্কে নিশ্চিত হতে হবে। পাশাপাশি হাতে বহনের জন্য কয় কেজি অনুমোদিত, সে ব্যাপারেও খেয়াল রাখতে হবে।

লাগেজে অবৈধ ও অননুমোদিত কোনো বস্তু যেন না থাকে, সেদিকে পূর্ণ সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। আন্তর্জাতিক আইনে যেসব সামগ্রী পরিবহন নিষিদ্ধ, সেসব কোনোভাবেই লাগেজে রাখা যাবে না। এমন কোনো জিনিস যাত্রীর লাগেজে থাকলে তা স্ক্যান ও চেক করার সময় ধরা পড়বে এবং এতে যাত্রী আইনি অনুসন্ধানের শিকার হতে পারেন।

যাত্রাকালে কোনো পরিচিত মানুষের দেওয়া প্যাকেট বহনকালে সেটির ভেতর কী রয়েছে, তা সম্পর্কে খোঁজখবর রাখতে হবে। অন্য মানুষের দেওয়া কোনো প্যাকেট বা সামগ্রী বহন করতে গিয়ে নিজের বিপদ ডেকে আনা সচেতন যাত্রীর কাজ নয়। ফলে এ ব্যাপারে সচেতনতার বিকল্প নেই।

হামাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশন কাউন্টারের পাশাপাশি ই-গেট সুবিধা চালু রয়েছে। যারা কাতারের আবাসিক পরিচয়পত্র (আইডি) বহন করেন, তারা ইচ্ছা করলে ইমিগ্রেশনের লাইনে না দাঁড়িয়ে ই-গেট ব্যবহার করে এক মিনিটেরও কম সময়ে ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়া শেষ করতে পারেন। এতে যাত্রীর সময় ও শ্রম সাশ্রয় হবে।

আকাশপথে ভ্রমণকালে সময় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তাই হাতে পর্যাপ্ত সময় নিয়ে বিমানবন্দরের উদ্দেশে রওয়ানা হওয়া ভালো। পাশাপাশি লাগেজ বুকিং করার পর কয়টার সময় বোর্ডিং শুরু হবে, সে ব্যাপারে জেনে নিতে হবে। কাউন্টার থেকে যে বোর্ডিং পাস দেওয়া হয়, তাতে উল্লেখিত বোর্ডিং সময় ও স্থান দেখে নিতে হবে। নির্ধারিত সময়ে বোর্ডিংয়ের জন্য নির্ধারিত প্রবেশপথে উপস্থিত থাকতে হবে।

উপরোক্ত বিষয়গুলো মনে রাখলে একজন ভ্রমণকারী নিরাপদে এবং স্বাচ্ছন্দ্যে যাত্রার আনন্দ উপভোগ করতে পারেন।

কাতার ডেস্ক

সংশ্লিষ্ট খবর