শুক্রবার ২৩শে আগস্ট ২০১৯ |

আমিরাতে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করছে একশ্রেণির বাংলাদেশি

 শুক্রবার ২রা আগস্ট ২০১৯ রাত ১২:৪১:০৮
আমিরাতে

সংযুক্ত আরব আমিরাতে ১২ আগস্ট ২০১২ থেকে বাংলাদেশি শ্রমিকদের নতুন ভিসা বন্ধ আছে। সাথে বন্ধ আছে অভ্যন্তরীণ ভিসা পরিবর্তনের সুযোগও। তবে খোলা আছে সীমিত কয়েকটি ক্যাটাগরিসহ ঘরের ভিসা ও ভিজিট ভিসা।

ভিজিট ভিসা মেয়াদ এক মাস, দুই মাস, তিন মাস ও মাল্টিফল এন্ট্রি ভিজট ভিসা ছয় মাসেরও হয়ে থাকে। এ ভিজিট ভিসায় এসে চড়া মূল্যে ঘরের ভিসা ও বিজনেস পার্টনার ভিসা লাগানোর সুযোগ আছে।

এই সুযোগটি নিয়ে প্রতিদিন আমিরাতে পাড়ি জমাচ্ছেন শত শত বাংলাদেশি বিভিন্ন পেশার লোকজন। ভিজিট ভিসায় আমিরাতে আসার পর শুধুমাত্র বিজনেস পার্টনার ভিসা লাগিয়ে বৈধ হওয়ার সুযোগ থাকলেও একশ্রেণির লোক তা কাজে না লাগিয়ে অথবা বিজনেস পার্টনার ভিসা লাগিয়ে বৈধ হওয়ার পরও নিজ প্রতিষ্ঠান ছেড়ে অবৈধ হয়ে অন্য কোনো প্রতিষ্ঠানে কাজ করতে গিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর  হাতে ধরা পড়ছেন। অনেকেই আবার দুয়েকজনে মিলে পার্টনার ভিসা লাগিয়ে অন্য কোনো কাজ করছেন। এতে ভিজিট ভিসার অপব্যবহারে নষ্ট হচ্ছে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি।

অনেকেই আবার ভিজিট ভিসায় বাংলাদেশ থেকে আমিরাতে আসা বিভিন্ন লোকের দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে একশ্রেণির দালাল চক্র বিজনেস পার্টনার ভিসা লাগিয়ে দেওয়ার নামে বাণিজ্য করে যাচ্ছেন। এতে প্রতারিতও হচ্ছেন অনেকেই। আবার কতিপয় প্রতিষ্ঠানের মালিক ভিজিট ভিসায় আসা শ্রমিকদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের অর্থের বিনিময়ে পার্টনার ভিসা লাগিয়ে দিয়ে নিজ প্রতিষ্ঠানে না রেখে অন্য  কোনো প্রতিষ্ঠানে কাজ করার জন্য ছেড়েও দিচ্ছেন। এতে অনেকেই নানা বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছেন।

আবার ভিজিটে আসা অনেক লোক ভিসার মেয়াদ শেষে দেশে ফিরে না গিয়ে বা চড়াদামে বিজনেস পার্টনার ভিসা না লাগিয়ে অবৈধ হয়ে কাজ করে যাচ্ছেন দিনের পর দিন। যা দেশটির শ্রম আইনে মারাত্মক অপরাধ।

বিশ্বস্ত সূত্র মতে, আমিরাতে ভিজিট ভিসায় আসা লোকদের মধ্যে অসংখ্য লোক বৈধ না হওয়ায় এবং মেয়াদ শেষে আমিরাত ত্যাগ না করায় বিষয়টি নিয়ে আমিরাতের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও ইমিগ্রেশন নানা কড়াকড়ি আরোপ করছেন। তাই ভিজিট ভিসা দেওয়ার ক্ষেত্রে আগের তুলনায় অনেক বিধিনিষেধ আরোপ করেছেন আমিরাত কতৃপক্ষ। অপরদিকে অবৈধদের ধরপাকড় অভিযানও চলছে নিয়মিত।

অভিজ্ঞ প্রবাসীদের মতে, এ ধারা চলতে থাকলে বাংলাদেশি শ্রমিকদের বন্ধ ভিসা চালু ও অভ্যন্তরীণ ভিসা পরিবর্তন সুযোগ চালুর ক্ষেত্রে অন্যতম অন্তরায় হয়ে দাঁড়াতে পারে এ ভিজিট ভিসা।

সংশ্লিষ্ট খবর