সোমবার ২৩শে সেপ্টেম্বর ২০১৯ |

যন্ত্রণায় কাতর প্রবাসী শওকত বাঁচতে চান

 শুক্রবার ৩০শে আগস্ট ২০১৯ দুপুর ০২:৫১:০৭
যন্ত্রণায়

শেখ মোহাম্মদ শওকাত

অন্যদিনের মতো সেদিনও কর্মস্থল  গিয়েছিলেন মালয়েশিয়ায় কর্মরত বাংলাদেশি শ্রমিক শেখ মোহাম্মদ শওকাত। কিন্তু সেদিনের যাওয়াটা যে তার জীবনের চরম নির্মমতা ডেকে আনবে, তা হয়তো তিনি বুঝতে পারেননি। কারখানায় ভয়াবহ এক দুর্ঘটনায় কোমর ভেঙে বর্তমানে হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) ভর্তি রয়েছেন তিনি। গত ১৭ আগস্ট ফ্যাক্টরিতে কাজ করতে গিয়ে এক দুর্ঘটনায় কোমর ভেঙে যায় তার। বর্তমানে মালয়েশিয়ার প্রসাশনিক রাজধানী পুত্রাজায়া হাসপাতালে আছেন তিনি। 

কুয়ালালামপুরের  অদূরে সেরডাংয়ের একটি কারখানায় কাজ করতেন শওকাত।  বাংলাদেশের গোপালগঞ্জে মুকসুদপুরের বাসিন্দা সেরডাং হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে বর্তমানে তিনি পুত্রাজায়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। 

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, হয়তো অপারেশনের মাধ্যমে তাকে বাঁচানো সম্ভব হবে। তবে ভবিষ্যতে আর তিনি ভারী কাজ করতে পারবেন না।

তবে  শওকাতকে বাঁচিয়ে তুলতে এই মুহূর্তে অনেক টাকার প্রয়োজন। বর্তমানে তার অপারেশনের জন্য ৩০ হাজার রিঙ্গিত (ছয় লাখ টাকা) প্রয়োজন। ইতিমধ্যে দেশ থেকে তার আত্মীয়-স্বজনরা ধারদেনা করে ১৭ হাজার রিঙ্গিত পাঠিয়েছেন। আরও প্রায় ১৩ কাজার রিঙ্গিত প্রয়োজন। কিন্তু প্রবাসী শওকাতের পরিবারের পক্ষে আর কোনোভাবেই তার অপারেশনের টাকা সংগ্রহ করা সম্ভব নয়। তাই তিনি মালয়েশিয়া কমিউনিটি প্রবাসী বাংলাদেশী ও বাংলাদেশের বিত্তবানদের কাছে সাহায্যের আকুতি জানিয়েছেন।

শেখ মোহাম্মদ শওকত হোসেনের দেশে তার স্ত্রী ও এক মেয়ে সন্তান রয়েছে। তারাও আর কোনোভাবে অপারেশনের এই বাকি টাকা জোগাড় করতে পারছেন না। সমাজের বিত্তবানদের কাছে তারাও শওকতের জন্য হাত বাড়িয়েছেন।

ইতিমধ্যে মালয়েশিয়া শ্রমিক লীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম বাবুল এবং জোহর বাংলাদেশ কমিউনিটির সাধারণ সম্পাদক এম জে আলম শওকাতের পাশে দাঁড়িয়েছেন। তবে বিত্তবানদের কিছুটা সহযোগিতা পেলে শওকাতের অপরারেশনের জন্য হয়তো বাকী টাকাও জোগাড় হয়ে যেতে পারে।

সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা

মেহের শেখ, মোবাইল নম্বর ০১৭৪১১৮৫৮২১ (বিকাশ, ব্যক্তিগত)। এ ছাড়া মোহাম্মদ আব্দুল কাদের, হংলং ব্যাংক, অ্যাকাউন্ট নম্বর : ০৫১৫০৩০৬৯৫৮ এই ঠিকানায় সাহায্য পাঠাতে পারেন।


প্রবাসী ডেস্ক

সংশ্লিষ্ট খবর