সোমবার ২৩শে সেপ্টেম্বর ২০১৯ |

আট দশক পর জার্মানির ক্ষমা প্রার্থনা

 রবিবার ১লা সেপ্টেম্বর ২০১৯ বিকাল ০৪:২১:২৩
আট

নিহতদের স্মরণে জার্মান প্রেসিডেন্ট ফ্রাঙ্ক ওয়াল্টার স্টেইনমেয়ের এবং পোল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেজ দুদা। ছবি-সংগৃহীত

দ্বিতীয়  বিশ্বযুদ্ধে জার্মানির নাৎসি স্বৈরাচারদের দ্বারা আক্রান্ত পোল্যান্ডবাসীর কাছে ক্ষমা চাইল জার্মানি। বিশ্বের ইতিহাসে সবচেয়ে প্রাণঘাতি এই যু্দ্ধ শুরুর ৮০ বছর পূর্তি উপলক্ষে রবিবার পোল্যান্ডের ওয়েলান শহরে এক অনুষ্ঠানে ক্ষমা চান দেশটির প্রেসিডেন্ট ফ্রাঙ্ক ওয়াল্টার স্টেইনমেয়ের। জার্মানির প্রথম বোমাটি এই শহরেই ফেলা হয়েছিল। 

জার্মান প্রেসিডেন্ট বলেন, আমি জার্মানির অত্যাচারের জন্য পোলিশদের সামনে মাথা নত করছি এবং তাদের কাছে ক্ষমা চাইছি। 

স্মরণসভার শুরুতেই এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এ সময় পোল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেজ দুদাও তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন। যিনি জার্মানির আক্রমণকে ‘বর্বর কাণ্ড’ হিসেবে আখ্যা দেন। তিনি বলেন, ওয়েলান দেখেছিল সেখানে কেমন যুদ্ধ হয়েছিল। যা ছিল পুরোটাই যুদ্ধ, নীতিহীন যুদ্ধ এবং ধ্বংসাত্মক যুদ্ধ। 

পোল্যান্ডের রাজধানী ওয়ারশতে আরেকটি স্মরণসভা হওয়ার কথা। যেখানে জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেল, যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস-প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সসহ বিশ্বনেতাদের সেখানে উপস্থিত হওয়ার কথা রয়েছে। 

আরও পড়ুন : খাদ্যনিরাপত্তার আহ্বান বাংলাদেশের

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে পোল্যান্ড মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। দেশটির ৬০ লাখ লোক সেই যুদ্ধে মারা যায়। আট দশক পরও এই যুদ্ধের জন্য জার্মানির কাছে ক্ষতিপূরণ দাবি করছে পোল্যান্ড। দেশটির একটি সংসদীয় কমিটি এখনও ক্ষতিপূরণের পরিমাণ নিয়ে পর্যালোচনা করছে। তবে জার্মানি বলছে বিষয়টি ইতোমধ্যেই সুরাহা হয়ে গেছে।  

উল্লেখ্য, ১৯৩৯ সালের ১ সেপ্টেম্বর জার্মান বিমানবাহিনী পোল্যান্ডের ওয়েলান শহরে বোমা হামলা করে। এতে হাজার হাজার মানুষ মারা যায়। অ্যাডলফ হিটলারের নির্দেশে এই হামলার পর সামরিক অভিযান বন্ধে জার্মানিকে আল্টিমেটাম দেয় ব্রিটেন। সেই আল্টিমেটামে হিটলার সাড়া না দেয়ায় ব্রিটেন ও ফ্রান্স জার্মানির বিরুদ্ধে ৩ সেপ্টেম্বর ‍যুদ্ধ ঘোষণা করে। ছয় বছর ব্যাপী এই যুদ্ধে লাখ লাখ লোক মারা যায়।

সংশ্লিষ্ট খবর