বৃহঃস্পতিবার ১২ই ডিসেম্বর ২০১৯ |

কৌশলে কাতার থেকে আসামিকে দেশে নিয়ে গ্রেফতার করল পুলিশ

 বুধবার ৬ই নভেম্বর ২০১৯ দুপুর ০২:১৬:৫২
কৌশলে

ফেনীর দাগনভূঞা পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফখরুল উদ্দিন হত্যা মামলার এজাহার নামীয় ৮ নম্বর আসামি মনির আহম্মদকে কাতার থেকে কৌশলে দেশে ফিরিয়ে এনে গ্রেপ্তার করেছে পিবিআই। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মনির আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। ফেনীর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক আবদুল্লাহ খানের আদালতে হত্যার বিবরণ দেন তিনি।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মো. হায়দার আলী আকন্দ জানান, মনির আহম্মদের মাইক্রোবাস ভাড়া করে মামলার অপর আসামিরা। তারা ফখরুলকে ডেকে এনে গাড়িতেই হত্যা করে। পরে লাশ ফেলে দিতে বলে মনিরকে। কথা মতো কাজ না করলে মনিরকেও হত্যার হুমকি দেয় আসামিরা। মনির ভয়ে লাশ ফেলে চলে যান। পরে নিজেকে বাঁচাতে কাতার চলে যান। 

মামলাটি দাগনভূঞা থানা থেকে পিবিআইকে হস্তান্তর করা হয়। পিবিআই তদন্ত করে মনিরের মুঠোফোনের নাম্বার সংগ্রহ করে তার সঙ্গে যোগযোগ করে। পরে কাতার থেকে কৌশলে গত সোমবার তাকে দেশে ফিরিয়ে আনে পিবিআই। 

এ কর্মকর্তা আরও জানান, মনির মাইক্রোবাস চালক। সে হত্যাকান্ডে জড়িত নয়। পিবিআইয়ের আশ্বাসে তিনি দেশে আসেন এবং ধরা দেন।

২০১৮ সালের ২০ জানুয়ারি উপজেলার মাতুভূঞা ইউনিয়নের ব্রিজের পাশ থেকে ফখরুল উদ্দিনের গলা কাটা লাশ উদ্ধার করে দাগনভূঞা থানা পুলিশ। এ মামলায় দাগনভূঞা পৌরসভার প্যানেল মেয়র সাইফুল ইসলামসহ ৭ জনের নাম উল্লেখ ও ১২ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেন নিহতের ভাই নাজিম উদ্দিন চৌধুরী।

আমাদের সময়

সংশ্লিষ্ট খবর