বুধবার ২৬শে ফেব্রুয়ারি ২০২০ |

চীনের সঙ্গে বিমান যোগাযোগ স্থগিতের ঘোষণা কাতার এয়ারওয়েজের

 শনিবার ১লা ফেব্রুয়ারি ২০২০ সন্ধ্যা ০৭:২৮:১৪
চীনের

কাতার এয়ারওয়েজ

চীনে করোনা ভাইরাস দ্রুত ছড়িয়ে পড়ায় দেশটির সঙ্গে বিমান যোগাযোগ স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে কাতার এয়ারওয়েজ। ১ ফেব্রুয়ারি শনিবার নিজেদের অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্টে এ ঘোষণা দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

প্রতিষ্ঠানের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে দেওয়া এক বিবৃতিতে কাতার এয়ারওয়েজ জানিয়েছে, আগামী ৩ ফেব্রুয়ারি সোমবার থেকে চীনের মূল ভূখণ্ডে তাদের ফ্লাইট স্থগিত থাকবে। পরবর্তী ঘোষণা না আসা পর্যন্ত এ সিদ্ধান্ত কার্যকর থাকবে।

এর আগে করোনা ভাইরাসের কারণে চীনে ফ্লাইট বাতিলের ঘোষণা দেয় ইউনাইটেড এয়ারলাইন্স, এয়ার কানাডা, কাথায় প্যাসিফিক এয়ারওয়েজ, ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স, এয়ার ইন্ডিয়া ও ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের মতো প্রতিষ্ঠানগুলো। এ তালিকায় সর্বশেষ সংযোজন কাতার এয়ারওয়েজ।

শুধু বিমান চলাচলই নয়, ইতোমধ্যেই চীনা অর্থনীতিতেও করোনা ভাইরাসের প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। দেশটির মূল ভূখণ্ডে আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত নিজেদের সব অফিসিয়াল শোরুম ও কর্পোরেট কার্যালয় বন্ধ করছে আইফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপল। করোনা ভাইরাসের উৎপত্তিস্থল হুবেই প্রদেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ করে দেওয়ায় সেখানকার সরবরাহ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে গেছে।

২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর চীনে প্রথম করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়। দ্রুত এটি দেশটির বিভিন্ন রাজ্যে ছড়িয়ে পড়ে। সরকারি হিসাবে ইতোমধ্যেই দেশটিতে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে প্রায় ১২ হাজার মানুষ। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শুধু চীনের উহান শহরেই আক্রান্তের সংখ্যা ৭৫ হাজার ছাড়িয়েছে। দেশটি প্রকৃত পরিস্থিতি গোপন করছে। এমন পরিস্থিতিতে একের পর এক চীনে ফ্লাইট বাতিলের ঘোষণা দিতে থাকে আন্তর্জাতিক বিমান সংস্থাগুলো।

উল্লেখ্য, হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে উৎপত্তি হওয়া প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস ইতোমধ্যেই চীনের ৩১টি প্রদেশের সবগুলোতে ছড়িয়ে পড়েছে। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে উহানে যোগাযোগ বিচ্ছিন্নতাসহ নানা ধরনের পদক্ষেপ নেয় কর্তৃপক্ষ। সরকারি হিসাবে শনিবার পর্যন্ত চীনে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ২৫৯ জনের। আর আক্রান্ত হয়েছে ১১ হাজার ৭৯১ জন। তাদের অধিকাংশই উহানের বাসিন্দা।

সংশ্লিষ্ট খবর