শনিবার ২৮শে মার্চ ২০২০ |

দুই সপ্তাহের ছুটিতে কী হচ্ছে কুয়েতে?

 রবিবার ১৫ই মার্চ ২০২০ দুপুর ১২:৩২:৫৬
দুই

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে যখন বিশ্বজুড়ে চলছে অব্যাহত চেষ্টা, ঠিক তখন কুয়েত সরকারও করোনা প্রতিরোধে সর্বোচ্চ চেষ্টার পাশাপাশি দেশটির নাগরিক ও অভিবাসীদের নিরাপত্তার স্বার্থে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার দেশটির মন্ত্রিসভা টানা ২ সপ্তাহের জন্য সরকারি সব স্বাভাবিক কাজ স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর আগে গত ১ মার্চ হতে বন্ধ রাখা হয়েছে স্কুল ও মাদ্রাসা।

এদিকে আগামী ১৩ মার্চ মধ্যরাত থেকে কুয়েত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বাণিজ্যিক বিমান চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে দেশটির সিভিল এভিয়েশন। তবে কার্গো বিমানগুলো আগের মতো স্বাভাবিকভাবে চলাচল করবে। এছাড়াও বন্ধ রাখা হয়েছে গণপরিবহন বাস।

এছাড়াও কুয়েতের সরকার দুই সপ্তাহের ছুটি চলাকালীন দেশটির সব রেস্তোরাঁ, কফি শপ, জিম সেন্টার , ক্লাব ও শপিংমল বন্ধ রাখার নির্দেশ প্রদান করেছে মন্ত্রিসভা। বন্দরে আওতায় থাকবে না কোপারেটি সোসাইটি, ফার্মেসি, পেট্রল পাম্প,এটিএম বুথ ২৪ ঘন্টা চালু থাকবে যাতে গ্রাহকরা অর্থ উত্তোলন করতে পারেন।

কেবিএ বোর্ডের চেয়ারম্যান আদেল আল-মাজেদ জানান, জরুরি স্বার্থে কুয়েতের ছয়টি শহরে প্রতিটি ব্যাংকের একটি করে শাখা খোলা থাকবে।

এদিকে কুয়েতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কতৃক ঘোষিত এক বিজ্ঞপ্তিতে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে অদ্যাবধি যেসব প্রবাসী কুয়েত প্রবেশ করেছেন তাদেরকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নতুন প্রধান কেন্দ্রগুলোতে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ অনুযায়ী যোগাযোগের সময় অবশ্যই সিভিল আইডি এবং পাসপোর্ট সঙ্গে নিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

পরবর্তীতে গত সোমবার আরব টাইমসের কুয়েত সংস্করণের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বিমান চলাচল বন্ধ অবস্থায় আকামার মেয়াদত্তীর্ণ হয়ে গেলেও কুয়েতে কাজ করছেন এমন ১৬টি দেশের প্রবাসী কর্মীর ভিসা ও ভ্রমণ ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়।

এক্ষেত্রে যেসব প্রবাসীদের আকামার মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে গেছে তারা নিজ নিজ কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে। আর যাদের খাদেম আকামা তারা নিজ নিজ কফিলের সঙ্গে যোগাযোগ করতে আসতে পাবে।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ দূতাবাস কুয়েত কাউন্সিলর ও দূতালয় প্রধান মোহাম্মদ আনিসুজ্জামান স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কুয়েত সরকারের নিদের্শনা মোতাবেক দূতাবাসে ১২ মার্চ থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত পাসপোর্ট ও অন্যান্য কনস্যুলার সেবা বন্ধ থাকবে।

জরুরি বিষয়ে (যেমন মৃতদেহ সংক্রান্ত) অতীব জরুরি বিষয়গুলো চালু থাকবে। প্রবাসীদের যতদূর সম্ভব দেশে ও বিদেশে যাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে।

জরুরি প্রয়োজন ছাড়া রাস্তাঘাট, মার্কেটে চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। নিদের্শনাগুলো কঠোরভাবে মেনে চলার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এছাড়া করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত খবর আদান-প্রদানের জন্য দূতাবাসের হটলাইন নাম্বারে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

করোনার প্রকোপ থেকে বাঁচতে মসজিদে নামাজও সীমাবদ্ধ করা হয়েছে দেশটিতে। কুয়েতের ধর্ম মন্ত্রণালয় ঘোষণা দিয়েছে, মসজিদে শুধু আজান হবে নামাজ পড়তে হবে বাসায়।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের এমন ঘোষণার পর ব্যতিক্রমী এক চিত্র দেখা গেছে কুয়েতের বিভিন্ন মসজিদে।

সেখানে আজানের মাধ্যমে মুয়াজ্জিন বলছেন, ঘরে বসে নামাজ পড়তে। আজানের সব চেয়ে অপরিচিত এই বাক্য শোনা যায় কুয়েতের বিভিন্ন মসজিদে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আজানের এমন ভিডিও ভাইরাল হয়েছে, তাতে দেখা যায়, নামাজের আজানে ‘হাইয়া আলাস সালাহ’ (নামাজে আসো) যে লাইনটি রয়েছে, সেখানে মুয়াজ্জিন বলছেন, ‘আল-সালাতু ফি বুয়ুতিকুম।’ এর মানে আপনারা বাড়িতে বসে নামাজ পড়ুন।

এরপর যথারীতি ‘আল্লাহ আকবর’ এবং ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু’ বলে আজান শেষ করা হয়।

আল আরাবিয়ার খবরে বলা হয়, নামাজ পড়তে না আসতে কুয়েতের মসজিদগুলো থেকে বিভিন্নভাবে ঘোষণা দেয়া হচ্ছে। কোনো মসজিদে আজানের শুরু বা শেষে বিষয়টি বলে দেয়া হচ্ছে। আবার অনেক মসজিদে ‘হাইয়া আলাস সালাহ’র পরিবর্তে ‘আল-সালাতু ফি বুয়ুতিকুম’ কথাটি বলা হচ্ছে।

এরই মধ্যে কুয়েতে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৭২ জনে দাঁড়িয়েছে। এর মধ্যে তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তবে সেখানে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত কোনো মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি।

সংশ্লিষ্ট খবর