শনিবার ২৮শে মার্চ ২০২০ |

কলকাতাসহ ভারতের ৭৫ জেলা লকডাউন

 সোমবার ২৩শে মার্চ ২০২০ সকাল ০৭:০৮:০৩
কলকাতাসহ

করোনা সংক্রমণের প্রভাব পড়েছে ভারতের যে সব জায়গায় এমন ৭৫টি জেলাকে চিহ্নিত করে লকডাউন করা হয়েছে। এরমধ্যে পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগণাও রয়েছে। গতকাল রোববার সন্ধ্যায় বিজ্ঞপ্তি জারি করে বলা হয়েছে ৩১শে মার্চ পর্যন্ত এই ব্যবস্থা কার্যকর থাকবে। বন্ধ থাকবে সব ট্রেন, মেট্রোচলাচল এবং আন্তঃরাজ্য বাস চলাচল। বন্ধ থাকবে কারখানা, দোকান, বাজারও। রোববার ভারতের কেবিনেট সচিব সব রাজ্যের মুখ্যসচিবদের সঙ্গে সর্বশেষ করোনা পরিস্থিতি পর্যালোচনা করার পর দেশের ৭৫টি জেলায় লকডাউন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এসব জেলায় করোনা ভাইরাসের নিশ্চিত আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গেছে। ইতিমধ্যেই রাজস্থান, পাঞ্জাব ও ওড়িশায় লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।

মহারাষ্ট্রের ৪টি শহর ও গুজরাটের ৪টি শহরেও লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। ভারতে গতকাল পর্যন্ত করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৭০-এ। আর মৃত্যু হয়েছে ৭ জনের। রোববার একদিনে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। বিহারে এদিনই প্রথম কাতার ফেরত ৩৮ বছরের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গেও সংক্রমণের সংখ্যা বেড়ে ৫-এ গিয়ে দাঁড়িয়েছে। ফলে রাজ্য সরকার কয়েকটি জেলাসহ রাজ্যের সব পৌর এলাকায় লকডাউন ঘোষণা করে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। সোমবার ৫টা থেকে এই লকডাউন কার্যকর হবে। চালু থাকবে ২৯শে মার্চ পর্যন্ত। লক ডাউনের সময় জরুরি পরিষেবা ছাড়া সবকিছু বন্ধ থাকবে। বাড়ির বাইরে কাউকে বেরুতে নিষেধ করা হয়েছে। তবে অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের কোনো অভাব হবে না বলেও রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। এদিকে ভারতীয় রেলবোর্ড ৩১শে মার্চ পর্যন্ত ভারতে যাত্রীবাহী সব ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আগে বুধবার পর্যন্ত ট্রেন বন্ধ রাখার কথা বলা হয়েছিল। ভারতে যেভাবে প্রতিদিন করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে তার মোকাবিলায় এবার রেল যোগাযোগে রাশ টানতে চলেছে সরকার। ইতিমধ্যেই ৩৫৯-এ ছাড়িয়েছে ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। মৃত্যু হয়েছে ৬ জনের। শনিবার ভারতীয় রেলওয়ে থেকে জানানো হয়েছে, গত ১৩ থেকে ১৬ই মার্চ ট্রেনে যাতায়াত করেছেন এমন ১২ জন যাত্রী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন। এরপরই রেল কর্তৃপক্ষ ঘোষণা করেছে, রেল যাত্রা মোটেই সুরক্ষিত নয়। সহযাত্রী যদি করোনা আক্রান্ত হন তাহলে আপনিও করোনা আক্রান্ত হতে পারেন, এমনটাই জানানো হয়েছে সতর্কবার্তায়। গত শুক্রবারই শিয়ালদহগামী রাজধানী এক্সপ্রেসের এক বাংলাদেশি যাত্রীকে গয়া স্টেশনে ট্রেন দাঁড় করিয়ে নামিয়ে বাধ্যতামূলক কোয়রেন্টিনে পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে। রেল মন্ত্রকের একটি টুইটে বলা হয়েছে, রেলযাত্রা ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে গিয়েছে। সহযাত্রীর শরীরে করোনা ভাইরাস থাকলে আপনিও আক্রান্ত হতে পারেন। তাই ট্রেনে যাত্রা করবেন না। আপনার রেলযাত্রা বন্ধ রাখুন ও সবাইকে সুরক্ষিত রাখুন।

সংশ্লিষ্ট খবর