আফগানদের সামনে দাঁড়াতেই পারলো না উগান্ডা

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে তারকা ঠাসা আফগানিস্তানকে চ্যালেঞ্জ জানাতে পারেনি উগান্ডা। পূর্ব আফ্রিকার দেশটি প্রথমবার বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট খেলতে নেমে একেবারে নাস্তানাবুদ হয়েছে।

আফগানিস্তান তাদের ১২৫ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে টুর্নামেন্টে উড়ন্ত সূচনা করেছে। তাতে ‘সি’ গ্রুপে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, নিউজিল্যান্ডকেও আলাদা করে বার্তা দিয়ে রাখলো তারা।

কাতারের সব আপডেট পেতে যুক্ত হোন আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যানেলে

উগান্ডার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশ নেওয়াটাই ছিল এক ইতিহাস। বাছাইয়ে জিম্বাবুয়ের মতো শক্তিশালী দলকে হারিয়ে তারা মূল পর্বে নাম লিখিয়েছে। কিন্তু শুরুর ম্যাচে সেই ছাপটা তারা রাখতে পারেনি। খেলেছে পুঁচকে দলের মতো। ১৮৪ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে আফগান বোলিংয়ের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি তারা।

১৬ ওভারে গুটিয়ে গেছে মাত্র ৫৮ রানে। দলের হয়ে ডাবল ডিজিটে স্কোর করতে পেরেছেন মাত্র দুজন। রিয়াজাত আলী ও রবিনসন ওবুইয়া।

আফগান পেসার ফজল হক ফারুকি ছিলেন মূল হন্তারক। ৪ ওভারে মাত্র ৯ রানে ৫ উইকেট শিকার করেছেন। ম্যাচসেরাও তিনি। দুটি করে নিয়েছেন নাভিন উল হক ও রশিদ খান। একটি নিয়েছেন মুজিব উর রহমান।

কাতারে বিভিন্ন কোম্পানিতে নতুন চাকরির খবর

ওয়েস্ট ইন্ডিজ-পিএনজি ম্যাচে যেভাবে স্পিন ধরেছিল সেই আশাতে শুরুতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় উগান্ডা। যাদের একাদশে ছিল অলরাউন্ডারের ছড়াছড়ি। কিন্তু টুর্নামেন্টে অন্যতম ডার্ক হর্সের তকমা পাওয়া আফগানিস্তান শুরুতে ব্যাট করতে নেমে নিজেদের বিধ্বংসী ব্যাটিংটা দেখিয়েছে।

দুই ওপেনার রহমানউল্লাহ গুরবাজ ও ইব্রাহিম জাদরান মিলেই বড় স্কোরের মঞ্চটা গড়ে দিয়েছেন। ওপেনিংয়ে ১৪.৩ ওভারে ১৫৪ রান যোগ করেন তারা। জাদরান ৭০ রানের বিস্ফোরক ইনিংস খেলে আউট হলে ভাঙে শুরুর জুটি। তার ৪৬ বলের ইনিংসে ছিল ৯টি চার ও ১টি ছয়ের মার।

জাদরানের আউটের পর পর ৭৬ রানে ফেরেন গুরবাজও। ফেরার আগে ৪৫ বলের ইনিংস খেলে যান তিনি। যাতে ছিল ৪টি চার ও ৪টি ছয়ের মার। তার পর দ্রুত আরও তিনটি উইকেট পড়লেও ৫ উইকেটে ১৮৩ রানের বড় স্কোর পায় আফগানিস্তান।

উগান্ডার হয়ে দুটি করে উইকেট নেন কসমাস কেউতা ও ব্রায়ান মাসাবা।

আরো পড়ুন

BanglaTribune

Loading...
,