এক সপ্তাহে বিমানভ্রমণ বাবদ প্রায় ৬ কোটি টাকা খরচ সুনাকের!

যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক মাত্র এক সপ্তাহে বিমানভ্রমণ বাবদ ব্যয় করেছেন ৫ লাখ ইউরো, অর্থাৎ বাংলাদেশি মুদ্রায় ৫ কোটি ৮১ লাখ ৬৫ হাজার টাকা।

দেশটির দৈনিক পত্রিকা দ্য গার্ডিয়ান শুক্রবার নিশ্চিত করেছে এ তথ্য।

গত বছর নভেম্বরে এই ব্যয় তিনি করেছেন বলে সরকারি সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে গার্ডিয়ান।

কাতারের সব খবর হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করুন

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত বছর ৬ নভেম্বর জাতিসংঘের কপ ২৭ সম্মেলনে যোগ দিতে বেসরকারি বিমান ভাড়া করে মিশরে যান তিনি। ওই সফরে তার ব্যয় হয়েছিল ১ কোটি ২৫ লাখ ৬৩ হাজার টাকা (১ লাখ ৮ হাজার ইউরো)।

কপ ২৭ সম্মেলন শেষে করে ওই সপ্তাহেই জি২০ সম্মেলনে যোগ দিতে ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপে যান সুনাক। ওই যাত্রায় তার ব্যয় হয়েছিল ৩ কোটি ৯৫ লাখ ৫২ হাজার টাকা (৩ লাখ ৪০ হাজার ইউরো)।

তারপর লাটভিয়া ও এস্তোনিয়া সফরে বিমান ভাড়া বাবদ তিনি ব্যয় করেছেন ৭২ লাখ ৭০ হাজার টাকা (৬২ হাজার ৪৯৮ ইউরো)। এই সফরে তার ব্যক্তিগত ব্যয় ছিল ২ লাখ ৯০ হাজার ৮২৫ টাকা (২ হাজার ৫০০ ইউরো)।

কাতারে চাকরি খুঁজছেন? এখানে ক্লিক করুন

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের পর থেকে জ্বালানির দাম বেড়ে যাওয়ায় ব্যাপক অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাজ্য। দেশটির প্রায় এক তৃতীয়াংশ মানুষ একবেলার খাবার বাদ দিতে বাধ্য হচ্ছে।

এই পরিস্থিতিতে মাত্র এক সপ্তাহে বিমানভাড়া বাবদ এই পরিমাণ অর্থব্যয়কে ‘অপচয়’ এবং ‘করদাতাদের অর্থ নিয়ে যথেচ্ছাচার’ বলে উল্লেখ করেছেন বিরোধী দল লেবার পার্টির এমপিরা।

লেবার পার্টির এমপিদের পার্লামেন্টারি গ্রুপ লিবারেল ডেমোক্র্যাটস এই ব্যয়ের কঠোর সমালোচনা করে এক টুইটবার্তায় বলেছে, ‘দেশের করদাতা সাধারণ জনগণ যখন তাদের নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্য-আবাসন-জ্বালানির বিল পরিশোধ করতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছে, সেখানে প্রধানমন্ত্রী জনগণের করের টাকা এভাবে ইচ্ছামতো ওড়াচ্ছেন— এটা খুবই দুঃখজনক।’

‘কিন্তু এটাও সত্য যে, এত কিছুর পরও এই কনজারভেটিভ সরকার সম্পূর্ণ ধরা ছোঁয়ার বাইরে আছে।’

এদিকে, লিবারেল ডেমোক্র্যাটের টুইটের জবাবে শুক্রবার এক বিবৃতিতে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ডাউনিং স্ট্রিট জানিয়েছে, ‘প্রধানমন্ত্রীর সেসব সফরের উদ্দেশ্য ছিল বিশ্ব নেতাদের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ সব বৈঠকে অংশগ্রহণ।

নিরপত্তা, প্রতিরক্ষা, বাণিজ্যসহ আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু নিয়ে বিশ্ব নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করতে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে সেসব সফরে গিয়েছিলেন তিনি।’

যুক্তরাজ্যের সর্বশেষ বাজেটে দেশের জন্মহার বাড়ানোর ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

এই ব্যাপারটিরও সমালোচনা করেছেন বিরোধী লেবার পার্টির এমপিরা।

তারা বলছেন, চাইল্ডকেয়ারের সঙ্গে যুক্ত ব্রিটিশ কোম্পানি কোরু কিডসে শেয়ার আছে ঋষি সুনাকের স্ত্রী অক্ষতা মূর্তির, এবং সুনাকের বাজেটের মাধ্যমে উপকৃত হবেন তার স্ত্রী।

আরো পড়ুন

DhakaPost

Loading...
,