এবার ‍দুদিন আগে কাতারে আসার চেষ্টায় বাংলাদেশ

সৌদি আরবে ক্যাম্প করে ৩০ মে কাতারে আসার পরিকল্পনা ছিল বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের। কিন্তু শেষ মুহূর্তে বাতিল হয় সৌদি আরব যাত্রা। এরপর থেকে দেশেই বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপের বাছাইয়ের অনুশীলন করছে দল।

দাম্মামে ক্যাম্পের চিন্তা মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলে এখন বাফুফে চেষ্টা করছে একটু আগে কাতারে আসার।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বুধবার ২০২২ কাতার বিশ্বকাপ ও ২০২৩ এশিয়ান কাপের বাছাইয়ের প্রস্তুতি সেরেছে জেমি ডের দল। সূচি অনুযায়ী কাতারে আগামী ৩ জুন আফগানিস্তান, ৭ জুন ভারত এবং ১৫ জুন ওমানের বিপক্ষে বাছাইয়ের ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ।

সৌদি আরব যাত্রা বাতিল হয়ে যাওয়ায় বিদেশি কোনো দলের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার সম্ভাবনাও শেষ হয়ে গেছে। প্রস্তুতি ম্যাচে নিজেদের পরখ করে নিতে আগামী বৃহস্পতিবার শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাবের বিপক্ষে নামবে দল।

দুই দিন আগে কাতারে আসার চেষ্টা চলছে জানিয়ে টিম ম্যানেজার ইকবাল হোসেনের দাবি করলেন প্রস্তুতিতে কোনো ঘাটতি থাকছে না। দোহায় গিয়ে ভালো কিছু পাওয়ার ব্যাপারেও আশাবাদ জানালেন সাবেক এই ফুটবলার।

“আমরা যখন প্রস্তুতি শুরু করেছি…আমাদের লক্ষ্য আফগানিস্তান, ভারত ও ওমানের বিপক্ষে ভালো ফল করব। সৌদি আরব যাওয়া হয়নি বলে হয়ত আমাদের সাময়িক সমস্যা হয়েছে। আশা করি, আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) আমরা একটা প্রস্তুতি ম্যাচ খেলব।

ওটা খেলার পর আমরা চেষ্টা করছি ৩০ তারিখের আগে কাতার আসার। কাতারে গিয়ে আমরা আমাদের প্রস্তুতি নিব। ইনশাল্লাহ, আমরা আশা করি আফগানিস্তানের বিপক্ষে অবশ্যই পয়েন্ট পাব।”

“আমি মনে করি, এখানে কোনো ঘাটতি নেই। ছেলেরা খেলার মধ্যে ছিল, অনুশীলনের মধ্যে ছিল। হয়ত প্রস্তুতি ম্যাচের ক্ষেত্রে আমরা বলতে পারব, এই প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচ খেললাম না। যেহেতু আমরা চেষ্টা করছি দুই দিন আগে কাতারে আসার জন্য, সেটা হলে ভালো হবে।”

সৌদি আরব যেতে না পারা, প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে না পারা নিয়ে হতাশা জানিয়েছিলেন কোচ জেমি, অধিনায়ক জামাল ভূইয়া। রহমত মিয়াও হতাশ। তবে প্রতিকূলতা ডিঙিয়ে এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় জানালেন সাইফ স্পোর্টিংয়ের এই ডিফেন্ডার।

“সৌদি আরব যেতে পারলে ভালো হত। সেখানে প্রস্তুতি ম্যাচ খেললে নিজেদের ভুলগুলো চোখে পড়ত। তবে যত প্রতিকূলতাই আসুক না কেন, এগিয়ে যেতে হবে আমাদের।”

Loading...
,