কাতার প্রবাসীর ৭ লাখ টাকা হাতিয়ে নিল প্রতারকচক্র

মৌলভীবাজারের বড়লেখার কাতার প্রবাসী ব্যবসায়ী লোকমান আহমদের প্রায় ৭ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে গোলাপগঞ্জের মার্ভেলাস হোমস (প্রা:) লিমিটেড।

কাতারে চাকরি খুঁজছেন? এখানে ক্লিক করুন

এ ঘটনায় প্রতারক কোম্পানির চেয়ারম্যান, ম্যানেজিং ডিরেক্টরসহ ৪ ব্যক্তির নামে আদালতে মামলা করেছেন ভুক্তভোগী।

আসামিরা হলেন- মার্ভেলাস হোমস (প্রা:) লিমিটেড কোম্পানি চেয়ারম্যান, ম্যানেজিং ডিরেক্টর হাফিজ মাওলানা নুরুল হুদা, ডিরেক্টর সুফিয়ান আহমদ ও শামছুল হুদা।

কাতারের সব খবর হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করুন

মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, আসামিরা একে অপরের আত্মীয়, ব্যবসায়িক পার্টনার। তারা প্রতারকচক্র। এই চক্রের সদস্য সুফিয়ান আহমদ কাতারপ্রবাসী।

তিনি উপজেলার বড়থল গ্রামের কাতারপ্রবাসী লোকমান আহমদকে তাদের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের শেয়ার কেনার লোভনীয় প্রস্তাব দেন। ৪২ মাসে লভ্যাংশসহ মূলধন পরিশোধের প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

সেই শর্তে ২০১৬ সালের ৪ মার্চ ৫০ হাজার টাকা মূল্যের ৫ লাখ টাকার ১০টি শেয়ার কেনেন লোকমান। মেয়াদান্তে লোকমানকে লভ্যাংশসহ ৬ লাখ ৭০ হাজার টাকা পরিশোধের লিখিত প্রতিশ্রুতি দেয় প্রতারক কোম্পানির কর্তারা।

৪২ মাস পর শেয়ার ম্যাচিয়ুর্ড হলে কোম্পানির অফিসে গিয়ে মূলধন ও লভ্যাংশ দাবি করেন লোকমান। দ্রুত পরিশোধের আশ্বাস দিয়েও লোকমানকে টাকা পরিশোধ করছিল না কোম্পানিটি।

সবশেষ গত বছরের ২৪ নভেম্বর আসামিরা মুলধন ও লভ্যাংশ প্রদানের বিষয়টি অস্বীকার করেন। এর পর গত ১ ডিসেম্বর সিলেট সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ২য় আদালতে প্রতারকচক্রের বিরুদ্ধে মামলা করেন লোকমান।

এ বিষয়ে শনিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) লোকমানের আইনজীবী জাকির আহমদ বলেন, আসামিরা সিলেটের গোলাপগঞ্জের বাসিন্দা।

আদালত গোলাপগঞ্জ থানার ওসিকে থানায় মামলা দায়ের ও তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। ৬ ফেব্রুয়ারি মামলাটির পরবর্তী ধার্য তারিখ।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গোলাপগঞ্জ থানার এসআই জাহাঙ্গীর আলম জানান, থানার অফিসার ইনচার্জ মামলাটি তদন্তের জন্য তাকে দায়িত্ব দিয়েছেন। মামলাটি এখনও তদন্তাধীন।

তদন্ত কাজ শেষ হলেই বিজ্ঞ আদালতে প্রতিবেদন জমা দেওয়া হবে।

আরো পড়ুন

Banglanews24

Loading...
,