কাতারের কর্নিশে যে কারণে বিভিন্ন দেশের পতাকা

কাতারের রাজধানী দোহার অন্যতম ব্যস্ত ও গুরুত্বপূর্ণ সড়ক কর্নিশে দেখা যাচ্ছে বিভিন্ন দেশের পতাকা। এসব দেশের পতাকা দেখে অনেকেই কৌতুহলী হয়ে উঠছেন। কী উপলক্ষে এই পতাকাগুলো এভাবে সাজানো হচ্ছে কর্নিশে, এমন প্রশ্ন অনেকের মনে।

বর্তমানে চলছে ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপ ২০২২ বাছাইপর্ব। স্বাগতিক দেশ হিসেবে প্রতিযোগিতায় সবার আগে অংশগ্রহণ নিশ্চিত হয়েছে কাতারের।

বাকি ৩১টি দলকে ফুটবল মহাযজ্ঞে আসতে হচ্ছে বাছাইপর্বের গণ্ডি পেরিয়ে।আর তাই যেসব দেশ ইতোমধ্যে বাছাইপর্বের যুদ্ধে জয়ী হয়েছে, সেসব দেশের পতাকা সাজানো হচ্ছে কর্নিশে।

বাছাইয়ের বলয় ভেঙে সবার আগে কাতার গমন নিশ্চিত করেছে জার্মানি। এরপর আরো চারটি দল নিশ্চিত করেছে বিশ্বকাপের মূলপর্বে অংশগ্রহণ। দলগুলো হচ্ছে- ব্রাজিল, ডেনমার্ক, ফ্রান্স ও বেলজিয়াম।

ল্যাটিন আমেরিকা অঞ্চল থেকে সবার আগে কাতারের টিকিট কেটেছে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল। দ্বিতীয় দল হিসেবে দুইবারের বিশ্বসেরা আর্জেন্টিনার সম্ভাবনা প্রবল। এরপর এগিয়ে আছে ইকুয়েডর।

আফ্রিকা অঞ্চলের মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বী অনেক। এখানে ১০ গ্রুপের সেরা দল খেলবে প্লে-অফ। ইতোমধ্যে প্লে-অফ নিশ্চিত করেছে মরক্কো, সেনেগাল, মিশর ও মালি। এশিয়া অঞ্চল থেকে সরাসরি কাতার যাওয়ার দৌড়ে এগিয়ে আছে ইরান, দক্ষিণ কোরিয়া, সৌদি আরব ও অস্ট্রেলিয়া। কিছুটা পিছিয়ে থাকা জাপানের প্লে-অফের সম্ভাবনা ভালোভাবেই টিকে আছে।

উত্তর আমেরিকা অঞ্চল থেকে বিশ্বকাপের মূলপর্বে জায়গা পাওয়ার দৌড়ে এগিয়ে আছে যুক্তরাষ্ট্র, মেক্সিকো ও কানাডা। পানামা পয়েন্ট তালিকার চারে থেকে প্লে-অফের সম্ভাবনা ভালোভাবেই টিকিয়ে রেখেছে। অতিনাটকীয় কিছু না ঘটলে শীর্ষ তিনটি দলই সরাসরি খেলবে মূলপর্বে। আর পানামা প্লে-অফ পর্বে।

,