কাতারে ইসলামবিরোধী পণ্য বিক্রি করলে ১০ লাখ রিয়াল জরিমানা

কাতারে ব্যবসা বাণিজ্যে পণ্য বেচাকেনার সময় ইসলামবিরোধী কোনো কিছু বিক্রি বা বিক্রির জন্য দেখানো যাবে না।

পাশাপাশি কাতারের রাষ্ট্রীয় মূল্যবোধ, রীতিনীতি ও ঐতিহ্যকে সম্মান করতে আহবান জানিয়েছে শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

কাতারে কোনো দোকানে বা প্রতিষ্ঠানে এমন কোনো পণ্য বিক্রি বা ছবি, ভিজ্যুয়াল বা অডিও প্রদর্শন করা যাবে না যাতে ইসলামী মূল্যবোধ, নৈতিকতা, রীতিনীতি এবং স্থানীয় ঐতিহ্য লঙ্ঘন হয়।

২০০৮ সালে ২ নং অনুচ্ছেদের ৪ নং ধারার ৮ নং আইনে ধর্মীয় মূল্যবোধ ও ঐতিহ্যকে সম্মান করার অধিকার অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

কাতার শিল্প মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তি

কাতারের সব খবর আপনার হোয়াটসঅ্যাপে পেতে ক্লিক করুন এখানে

এই সংক্রান্ত আইন লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে দশ লাখ রিয়াল জরিমানার পাশাপাশি আরও বেশকিছু কঠিন শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় জানায়, কাতারের সব ব্যবসায়ী ও প্রধান শপিং সেন্টারগুলোকে অবশ্যই নিম্নলিখিত আইনগুলো মেনে চলতে হবে:

১) কাতারে ব্যবসা করতে হলে কোনো পণ্য সরবরাহ করার আগে আমদানি উৎসের সাথে সমন্বয় করতে হবে। পাশাপাশি এসব পণ্য ইসলামী মূল্যবোধের পরিপন্থী স্লোগান, নকশা, প্রতীক প্রচার বা বহন করবে না এটিও নিশ্চিত করতে হবে।

২) দোকানের সামনে কোনো পণ্য ঝুলানো যাবে না। এটি সাধারণ শালীনতা ও কাতারের ঐতিহ্য ও রীতিনীতির বিপরীত। এছাড়াও এটি দেশের সৌন্দর্য নষ্ট করে।

৩) অনুপযুক্ত উপহার ও প্যাকেজিং সামগ্রীর ব্যবহার করা যাবে না। যে কোনো সম্প্রদায়ের ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক মূল্যবোধে আঘাত করে এমন অনৈতিক কর্মকাণ্ড করা যাবে না।

৪) অনৈতিক বা অশালীন কোন ছবি, অডিও ক্লিপ, ভিজ্যুয়াল প্রকাশ করা যাবে না।

মন্ত্রণালয় সবাইকে সতর্ক করে জানায়, এই বাধ্যবাধকতাগুলো বাস্তবায়নে কোনো প্রকার অবহেলা করলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। অপরাধীদেরকে উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হবে।

এই আইনগুলো লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে দশ লাখ রিয়াল জরিমানাসহ তিন মাসের জেল, ব্যবসায়িক লাইসেন্স বাতিল ও কাতারে যেকোনো বাণিজ্যিক কার্যকলাপ থেকে আজীবন নিষিদ্ধ করা হবে।

কাতারের আরও খবর

গালফ বাংলা

Loading...
,