কাতারে রেস্টুরেন্টগুলোতে কর্মীসংকটে ব্যবসায়ীরা

করোনাভাইরাস মহামারি কাতারের রেস্তোরাঁগুলোর ব্যবসা পুরোপুরি পাল্টে দিয়েছে। দোহাসহ বিভিন্ন শহরের বেশ কয়েকটি রেস্তোরাঁর মালিক বলেছেন, কাতারে বর্তমানে ব্যবসা চালু রাখা খুবই কঠিন হয়ে পড়েছে তাদের জন্য।

কাতারের রেস্টুরেন্ট ব্যবসা নিয়ে লন্ডন-ভিত্তিক নিউজ ওয়েবসাইটে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।  এই প্রতিবেদনে বলা হয়, রেস্তোরাঁগুলোর মারাত্মক সংকটের জন্য করোনা ছাড়াও অনেকগুলো কারণ রয়েছে। যেমন, বিদেশি শ্রমিকদের তীব্র ঘাটতি, রাস্তাঘাট খনন ও কাঁচামালের উচ্চ মূল্য এবং বিভিন্ন খাতে শ্রমিকের চাহিদা বেড়ে যাওয়া।

পাশাপাশি কাতারে দীর্ঘদিনের শ্রম বিধিনিষেধ উঠিয়ে নেওয়া হয়েছে করোনাকালে। ফলে শ্রমিকদের আরও ভাল কাজের সন্ধানে চাকরি বদল করা খুব সহজ হয়েছে এবং এ কারণে অনেকে রেস্টুরেন্ট খাত ছেড়ে অন্য খাতে কাজ করছেন নিজের সুবিধা অনুসারে।

যখন মহামারীটি প্রথম আঘাত হানে তখন রেস্তোরাঁর মালিকদের কিছুই করার ছিলো না। তারা ব্যবসা চালু রাখতে ডেলিভারি ও টেকওয়ের উপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েন।

দোহায় বিন মাহমুদ এলাকায় অবস্থিত একটি রেস্তোরাঁর মালিক বলেন, করোনা সংকট কবে শেষ হবে তা আমাদের জানা ছিলো না। তাই সেই মুহূর্তে যে কর্মী আমাদের প্রয়োজন ছিলো না তাকে আমরা বিদায় করে দিয়েছি। যেমন আমাদের রেস্তোরাঁয় করোনাভাইরাস লকডাউনের আগে ৪৫ জন কর্মী ছিলো, এখন মাত্র ১৮ জন কর্মী আছেন।

অনেক কর্মী বলেছেন, কিছু রেস্তোরাঁ লকডাউন চলাকালীন তাদের সাথে খুবই নির্দয় আচরণ করেছে। এমনকি তাদের মধ্যে কয়েকজনকে খাবার ও থাকার জায়গা দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছিলো।

কাতারে এখন নতুন করে বিদেশী কর্মীদের জন্য ভিসা প্রক্রিয়াকরণ আগের তুলনায় অনেক কঠিন ও ধীর প্রক্রিয়ায় পরিণত হয়েছে। ফলে রেস্তোরাঁগুলোর জন্য বিদেশ থেকে নতুন কর্মীদের আনা কঠিন হয়ে পড়েছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

,