খুলছে লিবিয়ার শ্রমবাজার: কর্মী পাঠাবে এই ১৫টি এজেন্সি

মধ্যআফ্রিকার যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ লিবিয়ার বন্ধ শ্রমবাজার দীর্ঘদিন পর আবারো খুলতে যাচ্ছে। অফিসিয়ালভাবে সব কিছু ঠিক থাকলে অক্টোবর মাস থেকে কর্মী প্রেরণ শুরু হতে পারে।

শ্রমবাজার খোলার লক্ষ্যে বাংলাদেশের লিবিয়া দূতাবাস প্রথমে ১৫টি রিক্রুটিং এজেন্সির নামের তালিকা চূড়ান্ত করেছে।

পাশাপাশি কর্মীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানোর জন্য পাঁচটি মেডিক্যাল সেন্টারের নামও অনুমোদন দিয়েছে বলে লিবিয়ার ত্রিপোলিতে নিযুক্ত বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্রে জানা গেছে।

আপনি কি হোয়াটসঅ্যাপে সব খবর পেতে চান? তবে ক্লিক করুন এখানে।

জনশক্তি ব্যবসার সাথে সম্পৃক্তরা বলছেন, দূতাবাসের চাহিদা অনুযায়ী নির্ধারিত সময়ে যেসব এজেন্সি কাগজ (ডকুমেন্টস) জমা দিয়েছে তাদের মধ্যে থেকে প্রাথমিকভাবে কর্মী প্রেরণের জন্য ১৫টি রিক্রুটিং এজেন্সির নাম চূড়ান্ত করা হয়েছে বলে লিবিয়ার বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্র জানিয়েছে।

১৫টি রিক্রুটিং এজেন্সি হচ্ছে, এস এম ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড, সুফি ইন্টারন্যাশনাল লিমিটিড, এএনজেড গ্রুপ মাল্টি মেগা সার্ভিস, সরকার ইন্টারন্যাশনাল, সোনার বাংলা কৃষি খামার, তানেক্স ইন্টারন্যাশনাল, ওয়ান প্লাস ওভারসিস লিমিটেড, আল তামিম ওভারসিস, পাথ ফাইন্ডার ইন্টারন্যাশনাল, অরবিটাল এন্টারপ্রাইজ, মেরি গোল্ড ইন্টারন্যাশনাল, ফেমস ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল, এ জে ইন্টারন্যাশনাল, আল রোহান ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরিজম এবং নিউ হ্যাভেন ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড।

আমদের ফেসবুক গ্রুপে যোগ দিতে চাইলে এখানে ক্লিক করুন

এই ১৫টি এজেন্সিকে কর্মী প্রেরণের অনুমতি দেয়ার পাশাপাশি কর্মীর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য পাঁচটি মেডিক্যাল সেন্টারের নামের তালিকাও দূতাবাস চূড়ান্ত করেছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

বাংলাদেশের লিবিয়া দূতাবাস থেকে অনুমোদন পাওয়া পাঁচটি মেডিক্যাল সেন্টার হচ্ছে- সাম হেলথ চেকআপ লিমিটেড, আল-মাহা ডায়াগনস্টিক সেন্টার, মিম মেডিক্যাল সেন্টার, ইয়র্ক হসপিটাল ও পুষ্প ক্লিনিক।

গতকাল রোববার একাধিক জনশক্তি ব্যবসায়ী নাম না প্রকাশের শর্তে নয়া দিগন্তকে বলেন, কূটনৈতিক প্রচেষ্টার পর প্রায় ৮ বছর বন্ধ শ্রমবাজারটি আবারো খুলতে যাচ্ছে।

আর এটি খোলার পর্যায়ে আনতে আমাদের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ ও সচিব ড. আহমদ মুনিরুছ সালেহীন সংশ্লিষ্টদের অনেকেই পরিশ্রম করতে হয়েছে।

তাই বাজারটি খোলার পর যাতে কোনোভাবে কারো প্ররোচনায় বন্ধ না হয় সে দিকে আমাদের খেয়াল রাখতে হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে তারা বলেন, শৃঙ্খলিতভাবে লিবিয়াতে জনশক্তি প্রেরণ করার জন্য বাংলাদেশের লিবিয়া দূতাবাস রিক্রুটিং এজেন্সির নামের তালিকা তাদের ডাটাবেইজে অন্তর্ভুক্ত করেছে।

এর আগে তালিকাভুক্ত হতে দূতাবাস পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। ওই বিজ্ঞপ্তিতে রিক্রুটিং এজেন্সির প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দেয়ার জন্য আহ্বান জানায়।

এর পরই দূতাবাসের চাহিদা অনুযায়ী যারা নাম তালিকাভুক্ত হওয়ার জন্য কাগজ জমা দিয়েছে, তাদের মধ্য থেকে প্রাথমিকভাবে ১৫টি রিক্রুটিং এজেন্সিকে লিবিয়াতে জনশক্তি পাঠানোর জন্য মনোনীত করেছে। পর্যায়ক্রমে তারা আরো রিক্রুটিং এজেন্সিকে কর্মী পাঠাতে তালিকাভুক্ত করবে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তারা বলেন, সবকিছু ঠিক থাকলে অভিবাসন ব্যয় নিয়ন্ত্রণে রেখে আগামী মাস থেকে কর্মী যাওয়ার ঘোষণা চলে আসতে পারে।

এরই ধারাবাহিকতায় লিবিয়ায় সরাসরি শ্রমিক যেতে ঢাকা- ত্রিপোলি ফ্লাইট চালুর প্রক্রিয়াও চলছে।

গতকাল সন্ধ্যার আগে বাংলাদেশে নিযুক্ত লিবিয়া দূতাবাসের (শ্রম উইং) সংশ্লিষ্টদের সাথে ১৫ রিক্রুটিং এজেন্সি এবং পাঁচটি মেডিক্যাল সেন্টারের নামের তালিকা অনুমোদন দেয়া হয়েছে কি না তার সত্যতা জানতে যোগাযোগ করা হলে এ সংক্রান্ত বক্তব্য দূতাবাস থেকে নেয়া সম্ভব হয়নি।

কাতারে বিভিন্ন কোম্পানিতে চাকরির খবর দেখুন এখানে ক্লিক করে

কাতারের আরও খবর

নয়া দিগন্ত

Loading...
,