চিরকুট লিখে প্রবাসীর স্ত্রীর আ-ত্ম-হ-ত্যা

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর পৌরসভার ঘাটান্দির গনেশ মোড় এলাকায় এক গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

কাতারে চাকরি খুঁজছেন? এখানে ক্লিক করুন

শনিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ভূঞাপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফরিদুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে একই দিন সকালে ওই এলাকার লাবলুর বাসা থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

পরকীয়ার জেরে তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ পরিবারের।

নিহত ব্যক্তি টাঙ্গাইল সদর উপজেলার চরপৌলি গ্রামের বাসিন্দা মালয়েশিয়া প্রবাসী আবদুল আলীমের স্ত্রী নুরুন্নাহার (৩৫)।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আলীম তার মামাতো বোন নুরুন্নাহারকে বিয়ে করেন। তাদের ঘরে একটি ছেলে সন্তান রয়েছে (১১)। স্ত্রী নুরুন্নাহার স্বামীর বাড়িতে না থেকে ভূঞাপুরে ভাড়া বাসা নিয়ে সন্তান নিয়ে বসবাস করেন। সম্প্রতি তার স্বামী মালয়েশিয়া থেকে দেশে ফেরেন।

কাতারের সব খবর হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করুন

দেশে ফেরার পর জানতে পারেন তার শ্যালিকার স্বামী জহুরুলের মাধ্যমে ঘাটাইল উপজেলার রুপের বয়ড়া গ্রামের মাসুদ নামে একজনের সঙ্গে স্ত্রী পরকীয়ায় লিপ্ত। পরে বিষয়টি তিনি তার স্ত্রীকে জানালে স্ত্রী কোনো জবাব দেননি।

এদিকে শুক্রবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) রাতে আলীমকে ভূঞাপুরের গনেশ মোড় এলাকার নির্জন জায়গায় স্ত্রীর পরকীয়া প্রেমিক মাসুদ ও ভায়রা জহুরুল ডেকে নেয়। এ সময় নুরুন্নাহারের সামনে আলীমকে মারধর করা হয়।

পরে এলাকায় না থাকার শর্তে এবং প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।

পরে বিষয়টি স্ত্রীর ভাই মনিরুজ্জামানকে ফোনে জানালে ঘটনা জানতে পারে পরিবার। এ ঘটনার জের ধরে শনিবার সকালে নুরুন্নাহার গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

নুরুন্নাহারের স্বামী আব্দুল আলীম জানান, বিদেশ থেকে এসেই ভায়রা জহুরুলের মাধ্যমে জানতে পারি আমার স্ত্রী পরকীয়ায় লিপ্ত। জহুরুল আমার স্ত্রী ও মাসুদের গভীর সম্পর্কের ছবি ও ভিডিও দেখায়।

পরে জহুরুল আমার কাছে টাকা দাবি করে। বিষয়টি স্ত্রীকে জানালে সে কোনো জবাব দেয়নি।

তিনি আরও জানান, গত শুক্রবার রাতে জহুরুল ও মাসুদ মিলে একটি নির্জন জায়গায় নিয়ে গিয়ে আমাকে মারধর করে। এ সময় সেখানে স্ত্রীও উপস্থিত ছিল।

পরে তাদের বিভিন্ন শর্ত রাজি হয়ে ভূঞাপুর থেকে পালিয়ে যাই। পরে আমার স্ত্রীর ভাইকে ফোনে বিস্তারিত বললে বিষয়টি পরিবারের মধ্যে জানাজানি হয়। স্ত্রী নুরুন্নাহারকে বিদেশ থেকে পাঠানো প্রায় পাঁচ লাখ টাকা মাসুদ বিভিন্ন কৌশলে হাতিয়ে নিয়েছে। আরও পাঁচ লাখ টাকা ঋণ করেছে নুরুন্নাহার।

ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফরিদুল ইসলাম জানান, শনিবার সকালে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মরদেহের সুরতহাল করার সময় একটি চিরকুট পাওয়া গেছে। আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ রয়েছে।

আরো পড়ুন

RTVOnline

Loading...
,