তুরস্ক-সিরিয়ায় বিশ্বকাপের ‘মোবাইল বাড়ি’

স্মরণকালের সবচেয়ে ভয়াবহ ভূমিকম্পে বিপর্যস্ত তুরস্ক ও সিরিয়ার পাশে দাঁড়িয়েছে কাতার। গত বিশ্বকাপে বাসস্থান হিসেবে ব্যবহৃত ১০ হাজার ‘মোবাইল বাড়ি’ দেশ দুটির ক্ষতিগ্রস্থ অঞ্চলে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা।

কাতারের সব খবর হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করুন

সপ্তাহ খানেক আগে ৯ ঘন্টার ব্যবধানে আঘাত হানা ৭.৮ ও ৭.৫ মাত্রার ভূমিকম্পে তুরস্ক ও সিরিয়ায় এখন পর্যন্ত প্রায় ৪০ হাজার মানুষ মারা গেছে। দেশ দুটিতে উদ্ধার তৎপরতা বন্ধ হতে শুরু করেছে। তবে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ভূমিকম্পে কয়েক হাজার ভবন ধ্বংস বা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, লাখ লাখ মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েছে। ভূমিকম্পের পরের কয়েক দিনে আশ্রয়কেন্দ্রগুলি ভরে যাওয়ায় অনেকে প্রচণ্ড শীতের মধ্যে বাইরে ঘুমাতে বাধ্য হচ্ছে।

কাতারে চাকরি খুঁজছেন? এখানে ক্লিক করুন

ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় প্রথম ধাপের অস্থায়ী বাসস্থান পাঠানোর একটি ভিডিও সোমবার টুইটারে পোস্ট করে কাতারের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক উন্নয়ন ও বিদেশি সাহায্যের জন্য গঠিত সরকারি সংস্থা ‘কাতারি ফান্ড ফর ডেভেলপমেন্ট।’

একজন কাতারি কর্মকর্তা বলেন, ২০২২ বিশ্বকাপের পরিকল্পনায় এই ধরনের অস্থায়ী বাসস্থান সবসময় দান করার উদ্দেশ্যে ছিল তাদের। তবে তুরস্ক ও সিরিয়ার জরুরী প্রয়োজনের প্রেক্ষিতে তাত্ক্ষণিক সহায়তা করার জন্য দেশ দুটিতে এসব বাসস্থান পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা।

আরো পড়ুন

BDNews

Loading...
,