থাইল্যান্ডে ১৯ বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী আটক

থাইল্যান্ডের তাক বাই জেলায় অনুপ্রবশের অভিযোগে ১৯ বাংলাদেশি পাসপোর্টধারীকে আটক করেছে স্থানীয় পুলিশ। স্থানীয় এক ব্যক্তির ব্যাপারে অভিযোগ পাওয়ার পর পুলিশ প্রথমে তাকে আটক করে।

কাতারে বিভিন্ন কোম্পানিতে নতুন চাকরির খবর

পরে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ইমিগ্রেশন পুলিশ আরও ১৮ বাংলাদেশিকে আটক করে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম খাওসোদইংলিশকে থাই ইমিগ্রেশন ব্যুরোর ডেপুটি কমিশনার পান্তানা জানান, ১৯ জনের পাসপোর্ট পরীক্ষা করে দেখা গেছে তারা সবাই বাংলাদেশি।

পাসপোর্টগুলোর ১৫টিতে গত ৮ জানুয়ারি, ২টিতে ৯ জানুয়ারি থাই ইমিগ্রেশন ব্যুরোর এন্ট্রি স্ট্যাম্প ছিল। কিন্তু ইমিগ্রেশন ব্যুরোর মাধ্যমে পরীক্ষা করে দেখা গেছে, ১৯টি পাসপোর্টে যে ভিসা স্টিকার ছিল তা ভুয়া।

আটকরা পুলিশকে জানিয়েছে তারা কম্বোডিয়ায় ছিল এবং যারা তাদের কম্বোডিয়ায় থাকার ব্যবস্থা করেছিল সেই দালালরাই তাদের কাছ থেকে পাসপোর্টগুলো সংগ্রহ করেছিল থাইল্যান্ডে এন্ট্রি স্ট্যাম্প লাগানোর জন্য।

যাতে করে তারা থাইল্যান্ড হয়ে মালয়েশিয়ায় যেতে পারে। এজন্য তারা চার থেকে পাঁচ লাখ টাকা করে নিয়েছে।

নরাথিওয়াত প্রাদেশিক ইমিগ্রেশন পুলিশ এবং তাক বাই থানা এই মানবপাচারকারী নেটওয়ার্কের বাকি সদস্যদের খুঁজে বের করার জন্য তদন্ত শুরু করেছে।

কাতারের সব খবর সরাসরি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে এখানে ক্লিক করুন

২০২৩ সাল থেকে কম্বোডিয়া হয়ে থাইল্যান্ডে অনুপ্রবেশকারী বাংলাদেশির সংখ্যা বেড়েই চলেছে। তাছাড়া সম্প্রতি মানবপাচারকারী চক্রটির থাই ইমিগ্রেশন ব্যুরোর ভুয়া এন্ট্রি স্ট্যাম্প ব্যবহারের একাধিক প্রমাণ পাওয়া গেছে।

তারা মালয়েশিয়ার ভিসা আবেদনের কাজে এই ভুয়া সিল ব্যবহার করে।

আরো পড়ুন-

BanglaNews24

Loading...
,