দেশে গিয়ে বিয়ে করা হলো না কাতার প্রবাসী তরুণ সুমনের

কথা ছিল কাতার থেকে দেশে গিয়েই বিয়ে করবেন সুমন। দেশেও গেলেন, কিন্তু জীবিত নয়- কফিনবন্দী লাশ হয়ে।

জীবিকার তাগিদে ২০১৬ সালে কাতারে এসেছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়া উপজেলার উত্তর ইউনিয়নের চানপুর দক্ষিণপাড়ার মো. মান্না মিয়ার বড় ছেলে মো. সুমন মিয়া।

গত ৭ সেপ্টেম্বর কাতারে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান প্রবাসী সুমন (২৫)। পরে ১৯ সেপ্টেম্বর রবিবার বেলা ১১ টার দিকে সুমনের লাশ দেশে নিয়ে যাওয়া হয়।

স্থানীয় ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, প্রবাসের কষ্টার্জিত টাকা দিয়ে সুন্দর একটা বাড়ি নির্মাণের কাজ শুরু করেন প্রবাসী সুমন মিয়া।

বাড়ির কাজ শেষ করেই বিয়ের পিঁড়িতে বসবেন বলে আশায় বুক বেঁধেছিলেন এই কাতার প্রবাসী তরুণ।

মা-বাবাও পরিবারের বড় ছেলের বিয়ে ধুমধামে করবেন, এই আশায় ছিলেন। তারা ছেলের জন্য পাত্রী দেখাও শুরু করেন।

কিন্তু বাবা-মার সে আশা আর পূরণ হলো না। শেষ হয়ে গেল একটি পরিবারের সব স্বপ্ন ও আশা।

প্রবাসে সড়ক দুর্ঘটনায় এভাবেই প্রতিদিন ঝড়ে পড়ে কত প্রাণ, শেষ হয়ে যায় কত সুন্দর স্বপ্ন ও ভবিষ্যতগুলো।

কাতারের সব খবর আপনার হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করুন

কাতারের আরও খবর

Loading...
,