নন্দিত থেকে যেভাবে নিন্দিত পরীমনি

ঢাকাই চলচ্চিত্রের পরিচিত মুখ পরীমনি বিভিন্ন সময়ে নানা কারণে হয়েছেন আলোচিত-বিতর্কিত। শো বিজে আসার অল্প সময়ের মধ্যে তিনি চলে আসেন আলোচনার কেন্দ্রে। তার অভিনীত সিনেমার বেশির ভাগ ব্যবসা সফল না হলেও ব্যক্তিগত ধনাঢ্য জীবন নিয়ে রয়েছে নানা প্রশ্ন।

তবে এর মধ্যেও গত জুনে তিনি ঢাকা বোট ক্লাবে ধর্ষণ চেষ্টার শিকার হওয়ার অভিযোগ তোলার পর সাধারণ মানুষের ব্যাপক সহানুভূতি পান। অবশ্য সেই আলোড়ন স্থায়ী হয়নি, কয়েক দিনের মধ্যেই তার বিতর্কিত আরও কিছু কর্মকাণ্ড প্রকাশ পেলে ঘুরে যেতে থাকে জনমত।

র‌্যাবের অভিযানে বুধবার আটক হয়েছেন পরীমনি। তার বাসা থেকে ভয়ংকর মাদক এলএসডি, আইসসহ বিপুল পরিমাণ মদ উদ্ধারের দাবি করেছে র‌্যাব। মাত্র দেড় মাসের ব্যবধানে নন্দিত থেকে নিন্দিত চরিত্রে পরিণত হয়েছেন আলোচিত এই অভিনেত্রী।

গত ১৩ জুন পরীমনির একটি ফেসবুক স্ট্যাটাসে আটকে যায় সারা দেশের চোখ। ওইদিন রাত ৮টায় নিজের ভেরিফায়েড পেজে তিনি অভিযোগ তোলেন, ঢাকা বোট ক্লাবে তাকে ধর্ষণ ও হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। তবে কারো নাম উল্লেখ করেননি তিনি।

এই স্ট্যাটাস মুহূর্তেই ভাইরাল হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। সংবাদ মাধ্যমকর্মীরা রাতেই ছুটে যান পরীমনির বনানীর বাসায়। এ সময়ে তিনি অভিযোগ করেন, প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী ও ঢাকা বোট ক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির তখনকার সদস্য নাসির উদ্দিন মাহমুদ ৯ জুন ক্লাবে তাকে ধর্ষণ ও হত্যার চেষ্টা করেন।

নন্দিত থেকে যেভাবে নিন্দিত
ধর্ষণ ও হত্যা চেষ্টার অভিযোগ তোলার পর বনানীর বাসায় সংবাদকর্মীদের মুখোমুখি পরীমনি


পরদিন ১৪ জুন সাভার থানায় ব্যবসায়ী ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য নাসির উদ্দিন মাহমুদের বিরুদ্ধে মামলা করেন পরীমনি। ওই দিনই পুলিশ নাসিরকে গ্রেপ্তার করে।

১৫ জুন বিকেলে নিজের বক্তব্য জানাতে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) কার্যালয়ে যান আলোচিত এই অভিনেত্রী।

প্রায় দুই ঘণ্টা পর ডিবি কার্যালয় থেকে বেরিয়ে আসামি গ্রেপ্তারের ঘটনায় সাংবাদিকদের কাছে নিজের স্বস্তির কথা জানান তিনি। সে সময় তার বলা ‘আমি রিফ্রেশড’ কথাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ আলোচনার জন্ম দেয়।

পরীমনির সাহসিকতার প্রশংসা করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই সরব হন। প্রবল আলোচিত হিরো আলম গানে গানে ন্যায়বিচার নিশ্চিতের আহ্বান জানান। পরীমনিকে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা জানিয়ে ফেসবুকে পোস্ট দেন নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা নাসরিনও।

ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা মামলায় গ্রেপ্তারের পর নাসির উদ্দিন মাহমুদ ও তার সঙ্গী তুহিন সিদ্দিকী অমিকে কয়েক দফা রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। এরপর ৩০ জুন আদালত তাকে জামিন দেয়। পরদিন ১ জুলাই কারাগার থেকে মুক্তি পান নাসির উদ্দিন আহমেদ।

শুরু থেকেই তিনি নিজের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করছিলেন নাসির। কারাগার থেকে বের হওয়ার পর তিনি দাবি করেন, বোট ক্লাব থেকে পরীমনি তিন লিটারের একটি ব্লু লেবেলের বোতল নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন। আর তাতে বাধা দেয়ার কারণেই ওই রাতে তৈরি হয় ‘ঝামেলা’।

নাসির উদ্দিন মাহমুদ বলেন, ‘ওই দিন অমি সাহেব প্রথমে তাকে (পরীমনি) একটা ব্লু লেবেল খাইয়েছিল, যেটার দাম ৩৫ হাজার টাকা। সেটা সে শরবতের মতো খেয়ে ফেলছে, অল্প সময়ের মধ্যে।

পরবর্তী সময়ে আরও একটা দেয়া হয়েছিল, সেটার তিন ভাগের দুই ভাগ সে খেয়ে ফেলছিল, যতটুকু আমার মনে পড়ে।

‘আর দুটা ওয়াইনের বোতল সঙ্গে থাকা একটা মেয়ের ব্যাগে ঢুকিয়ে ফেলছিল পরীমনি। এরপর ঝামেলা শুরু হয় তিন লিটারের একটা ব্লু লেবেলের বোতল নিয়ে, যেটার দাম দেড় লাখ টাকা।

যেটা আমরা বিক্রি করি না। মূল ঝামেলা ওই বোতল নেয়া থেকেই শুরু।’

নাসিরের অভিযোগ, এরপরই পরীমনি ও তার সঙ্গীরা ভাঙচুর ও গালিগালাজ শুরু করেন। এরপর তোলা হয় ‘ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার’ অভিযোগ।

নন্দিত থেকে যেভাবে নিন্দিত
ধর্ষণ ও হত্যার অভিযোগ তুলে কান্নায় ভেঙে পড়েন পরীমনি

তবে নাসিরের এই অভিযোগ অস্বীকার করেন পরীমনি।‘মিডিয়া ট্রায়ালের’ পাল্টা অভিযোগ তুলে ঢাকাই সিনেমার আলোচিত এই অভিনেত্রী বলেন, ‘‘এমনকি সেই রাতে (বোট ক্লাবে) নাসির একজন ওয়েটারকেও লাথি মেরেছিল।

‘ডানাকাটা পরি’ গানের সঙ্গে নাচতে নাচতে আমার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় টাচ করছিল। তার ওই সময়ের আচরণ এত অসভ্য ছিল তা প্রকাশ করা যাবে না। শুধু তাই নয়, এসব ঘটনা তার নিজের মোবাইল ফোনে ধারণও করছিল।”

‘আমি ডানাকাটা পরি’ গানটি পরীমনি অভিনীত ‘রক্ত’ সিনেমার। সিনেমাটি ছিল বাংলাদেশ-ভারত যৌথ প্রযোজনার।

পরীমনিকে নিয়ে আলোচনার মধ্যেই গুলশানের একটি ক্লাবে ভাঙচুরের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে জিডি করার তথ্য প্রকাশ পায় ১৬ জুন।

ক্লাব কর্তৃপক্ষ সাংবাদিকদের জানায়, ৭ জুন রাতে গুলশান-১ এলাকার অল কমিউনিটি ক্লাব ৯৯৯ নম্বরে কল করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। পরে গুলশান থানায় পরীমনির বিরুদ্ধে সাধারণ ডায়েরি করে বাহিনীটি।

তবে সেই অভিযোগও অস্বীকার করেন পরীমনি। তিনি দাবি করেন, ঢাকা বোট ক্লাবের ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টার অংশ হিসেবে বিষয়টিকে সামনে আনা হয়েছে।

সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে পরীমনির বিলাসী জীবন নিয়ে নতুন করে প্রশ্ন উঠতে থাকে। অভিনয় জগতের সঙ্গে যুক্তরাও বিষয়টি নিয়ে নিজেদের অস্বস্তির কথা জানান।

নন্দিত থেকে যেভাবে নিন্দিত
ঢাকা বোট ক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির সাবেক সদস্য নাসির উদ্দিন মাহমুদ

টেলিভিশন ও চলচ্চিত্রের অভিনেত্রী ও পরিচালক অরুণা বিশ্বাস একটি এফএম রেডিওর সাক্ষাৎকারে পরীমনিকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘একজন শিল্পী কত টাকা ইনকাম করলে পাঁচ কোটি টাকার গাড়ি চালাতে পারে, চার কোটি টাকার বাড়ি কিনতে পারে।’

এর পাল্টা জবাবও দেন পরীমনি। নিজের ফেসবুক পেজে লেখেন, ‘বড় বড় সম্মানিত শিল্পীরাও পিছে রটানো গসিপ নিয়ে আমার দিকে আঙ্গুল তুলতেও ছাড়লেন না আজ।’ পাশাপাশি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ভূমিকা নিয়েও বেশ কয়েকবার হতাশা প্রকাশ করেন তিনি।

পরীমনি প্রশ্নে ধীরে ধীরে জনমনে বাড়তে থাকে বিভক্তি। এর মধ্যেই বুধবার বিকেলে হঠাৎ তার ফেসবুক লাইভ হতচকিত করে সবাইকে। বিকেল ৪টার দিকে লাইভে এসে তিনি জানান, তার বাসায় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে কয়েকজন ঢুকতে চাইছেন।

পরীমনি বলেন, থানায় ফোন দিয়েও কোনো সাড়া পাচ্ছেন না। তিনি বলেন, ‘কাকে ফোন দেব বুঝতেছি না। থানা থেকে কেউ ফোন ধরছে না। আমি লাইভ কাটব না, যদি আমার হাত থেকে কেউ ফোন নিয়ে নেয়, বুঝবেন আমার কিছু একটা হয়েছে।’

লাইভ চলার সময়েই শোনা যাচ্ছিল, ‘দরজায় বাইরে দাঁড়িয়ে থাকা ব্যক্তিরা নিজেদের আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য বলে পরিচয় দিচ্ছেন। তাদের বলতে শোনা যায়, ‘ঘরে আসতে দেন। আমরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর লোক।’

পরীমনির লাইভের মধ্যেই তার বনানীর বাসার সামনে ভিড় করতে শুরু করে গণমাধ্যমকর্মীরা। এক পর্যায়ে তিনি বাসার দরজা খুলতে রাজি হন। এরপরেই শেষ হয় প্রায় ৩২ মিনিটের লাইভ।

র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন জানান, সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতেই অভিযান পরিচালনা করা হয়।

নন্দিত থেকে যেভাবে নিন্দিত
মাদকসহ আটকের পর পরীমনিকে নেয়া হয় র‍্যাব সদর দপ্তরে

প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা অভিযান শেষে সন্ধ্যা ৭টায় র‌্যাবের গোয়েন্দা শাখার পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল খায়রুল ইসলাম পরীমনিকে হেফাজতে নেয়ার কথা নিশ্চিত করেন।

র‍্যাব জানায়, তার বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মদ, এলএসডি ও নতুন ধরনের মাদক আইস উদ্ধার করা হয়েছে।

রাত সোয়া ৮টার দিকে পরীমনিকে নিয়ে কুর্মিটোলায় র‌্যাবের সদর দপ্তরের উদ্দেশে রওনা হয় একটি গাড়ি। রাত পৌনে ৯টার দিকে গাড়িটি পৌঁছায় র‌্যাব সদর দপ্তরে।

মাদক আইনে পরীমনি ও তার বাসা থেকে আটক আশরাফুল ইসলাম দীপুর বিরুদ্ধে মামলা হচ্ছে। আর পরিচালক নজরুল ইসলাম রাজ এবং তার অফিস থেকে আটক সবুজ আলীর বিরুদ্ধে মামলা হচ্ছে মাদক ও পর্ণোগ্রাফি আইনে।

দুটি মামলায় র‌্যাবের পক্ষ থেকে করা হচ্ছে বলে নিশ্চিত করেন বাহিনীটির আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন।

,