বাংলাদেশে আসছে না এশিয়া কাপ, হতে পারে আরব আমিরাতে

কিছুদিন আগেই শ্রীলঙ্কা সফর করে গেছে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। বর্তমানে দেশটিতে আছে পাকিস্তান। ঘরের মাঠে নিয়মিতই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলে যাচ্ছে শ্রীলঙ্কা।

এরপরও দেশটিতে এশিয়া কাপ আয়োজনে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক অস্থিরতার কারণে শ্রীলঙ্কায় এশিয়া কাপ না হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।

এই আলোচনা অবশ্য বেশ আগে থেকেই। তখনই আয়োজক হিসেবে বাংলাদেশের নাম শোনা যায়। অনিশ্চয়তা বাড়ায় এবারও বাংলাদেশের নাম এসেছে।

যদিও বিসিবি জানিয়েছে, বাংলাদেশের এশিয়া কাপের আয়োজক হওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, আনুষ্ঠানিকভাবে শ্রীলঙ্কা আয়োজক থাকলেও সংযুক্ত আরব আমিরাতে হতে পারে এশিয়া কাপের পরের আসরটি।

চরম রাজনৈতিক সংকটের মধ্য দিয়ে সময় পাড় করছে শ্রীলঙ্কা। বিক্ষোভকারীদের প্রতিবাদের ঝড় আছড়ে পড়েছে রাষ্ট্রপতির বাসভবন পর্যন্ত।

বিক্ষোভে রাষ্ট্রপতি গোটাবায়া রাজাপাকসে পদত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছেন। এমন অবস্থায় এশিয়া কাপের মতো বড় একটি ক্রিকেট টুর্নামেন্ট আয়োজন করা বেশ কঠিন লঙ্কানদের জন্য।

শেষ পর্যন্ত শ্রীলঙ্কা এশিয়া কাপ আয়োজন না করতে পারলে টুর্নামেন্টটি চলে যেতে পারে আরব আমিরাতে। শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের সচিব মোহন ডি সিলভা তেমনই ইঙ্গিত দিয়েছেন।

পিটিআইকে দেওয়া এক স্বাক্ষাৎকারে ডি সিলভা অবশ্য অনেকটা নিশ্চিত করেই বলে দিয়েছেন আরব আমিরাতে এশিয়া কাপ আয়োজনের কথা। তিনি বলেছেন, ‘সংযুক্ত আরব আমিরাতে এশিয়া কাপ হওয়ার সম্ভাবনা খুব বেশি।’

শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের প্রধান নির্বাহী অ্যাশলে ডি সিলভাও একই তথ্য দিয়েছেন। ক্রিকেট বিষয়ক ওয়েবসাইট ক্রিকেটইনফোকে তিনি বলেছেন, ‘দুই দলের আয়োজক হওয়া আর ১০ দলের আয়োজক হওয়া এক বিষয় নয়। ১০টি দলের জন্য জ্বালানিসহ ১০টি বাস সরবরাহ করতে হবে আপনাকে ‘

‘আপনাকে প্রতিটি দলকে জ্বালানিসহ একটি লাগেজ ভ্যান দিতে হবে এবং ম্যানেজারদের জন্য পরিবহন দিতে হবে। স্পনসরদের পরিবহনও দিতে হবে এবং নিশ্চিত করতে হবে যে তারা তাদের স্পনসরশিপ থেকে যে প্রচার চাচ্ছে, তা পাচ্ছে। ফ্লাড লাইট চালানোর জন্য জেনারেটরের জ্বালানীর ব্যবস্থাও করতে হবে।’ যোগ করেন তিনি। চরম অস্থিরতায় থাকা শ্রীলঙ্কা প্রচন্ড জ্বালানি সঙ্কটে থাকার এসব উল্লেক করেন তিনি।

গত কিছুদিন ধরে এশিয়া কাপের আয়োজক হিসেবে বাংলাদেশের নাম শোনা যাচ্ছিল। কিন্তু রোববার বিসিবির বোর্ড সভার পর সেই সম্ভাবনা উড়িয়ে দিলেন নাজমুল হাসান পাপন।

বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘এশিয়া কাপ আমরা করতে চাইলে যে পারব না, তা কিন্তু নয়। যেহেতু শ্রীলঙ্কা আয়োজক, তাদেরই সিদ্ধান্ত। তবে এশিয়া কাপ বাংলাদেশে আসার সম্ভাবনা অত্যন্ত ক্ষীণ।’

আগামী ২৭ আগস্ট থেকে ১১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এশিয়া কাপ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। মূল পর্বে সরাসরি খেলবে পাঁচ টেস্ট খেলুড়ে দেশ বাংলাদেশ, আফগানিস্তান, ভারত, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা। বাছাই পর্ব থেকে হংকং, সিঙ্গাপুর, কুয়েত ও আমিরাত থেকে একটি দল মূল পর্বে জায়গা করে নেবে।

গালফ বাংলার হোয়াটসঅ্যাপে এড হোন এখানে ক্লিক করে

আজকের আরও খবর

টিবিএসনিউজ

Loading...
,