বাংলাদেশে যাওয়ার সময় কী পরিমাণ স্বর্ণ নেওয়া যাবে?

বাংলাদেশে যাওয়ার সময় কী পরিমাণ স্বর্ণ নেওয়া যাবে? এমন প্রশ্নের উত্তরে গুগল ও ফেসবুকে বিভিন্ন জায়গায় নানারকম তথ্য দেখা যায়। ফলে অনেক প্রবাসী বিভ্রান্ত হন এবং সঠিক তথ্য জানার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হন।

এই লেখায় গালফ বাংলার পক্ষ থেকে যা তুলে ধরা হচ্ছে, তা সরাসরি বাংলাদেশের ব্যাগেজ নীতিমালা ২০১৬ অনুসারে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের প্রজ্ঞাপন থেকে তুলে ধরা হচ্ছে। তাই এ সম্পর্কে কোনোরকম সন্দেহ বা অস্পষ্টতা থাকবে না।

সোনা বা রূপার অলংকারের ব্যাপারে প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, একজন যাত্রী বিদেশ থেকে বাংলাদেশে যাওয়ার সময় সর্বোচ্চ একশ গ্রাম ওজনের সোনার অলংকার অথবা দুইশ গ্রাম ওজনের রূপার অলংকার সাথে নিতে পারবেন এবং এজন্য কোনো শুল্ক বা ট্যাক্স পরিশোধ করতে হবে না।

তবে খেয়াল রাখতে হবে, একই রকমের অলংকার যেন ১২টির বেশি না হয়।

আর সোনা বা রূপার বারের ব্যাপারে প্রজ্ঞাপনে আরও বলা হয়েছে, একজন যাত্রী বিদেশ থেকে বাংলাদেশে যাওয়ার সময় সর্বোচ্চ দুইশ গ্রাম ওজনের সোনার বার অথবা দুইশ গ্রাম ওজনের রূপার বার আনলে তা কর বা ট্যাক্স পরিশোধ করে খালাস করতে পারবেন।

সুতরাং মনে রাখবেন, বিদেশ থেকে বাংলাদেশে যাওয়ার সময় যদি কোনো প্রবাসী নিজের সাথে সোনার অলংকার নেন তবে তা যেন একশ গ্রাম ওজনের চেয়ে বেশি না হয়। একশ গ্রামের বেশি হলে তাতে শুল্ক বা ট্যাক্স পরিশোধ করতে হবে।

আর যদি কোনো প্রবাসী যাত্রী সোনার বার নেন, তবে সর্বোচ্চ দুইশ গ্রাম পর্যন্ত হলে তা ট্যাক্স দিয়ে ছাড়িয়ে নিতে পারবেন।

,