বিদেশ থেকে আনা ফোন নিবন্ধন করতে হবে যেভাবে

আগামী বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) থেকে পরীক্ষামূলকভাবে চালু হচ্ছে ন্যাশনাল ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিটি রেজিস্টারের (এনইআইআর) কার্যক্রম।

এই কার্যক্রমে গ্রাহকের এনআইডি নম্বর ও সিম নম্বরের (এমএসআইএসডিএন) সঙ্গে ব্যবহৃত মোবাইল ফোনের আইএমইআই যুক্ত করে নিবন্ধন করা হবে। তবে গ্রাহকদের ব্যবহার করা বৈধ ও অবৈধ সব মোবাইল হ্যান্ডসেটই ৩০ জুনের মধ্যে স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিবন্ধিত হয়ে যাবে।

অন্যদিকে ১ জুলাই থেকে চালু করা মোবাইল হ্যান্ডসেটগুলো বৈধ কিনা সেটা যাচাই করা হবে এনইআইআরের মাধ্যমে। যেসব হ্যান্ডসেট বৈধ হবে না সেগুলো সম্পর্কে গ্রাহককে এসএমএস দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হবে। বৈধ হ্যান্ডসেট স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিবন্ধিত হয়ে যাবে এনইআইআর সিস্টেমে।

দেশে থাকা স্বজনদের জন্য অনেক প্রবাসী মোবাইল হ্যান্ডসেট নিয়ে আসেন। প্রচলিত ব্যাগেজ রুলস অনুযায়ী একজন ব্যক্তি বিদেশ থেকে শুল্কবিহীন সর্বোচ্চ দুটি এবং শুল্ক পরিশোধ সাপেক্ষে আরও ছয়টি মোবাইল ফোন সেট আনতে পারেন প্রবাসীরা। বিদেশ থেকে আনা এই হ্যান্ডসেট নিয়ে কী হবে— এ নিয়ে অনেকের মনেই প্রশ্ন রয়েছে।

টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি বলছে, বিদেশ থেকে ব্যক্তি পর্যায়ে বৈধভাবে কেনা বা উপহার পাওয়া মোবাইল ফোন সেট দেশে এনে চালু করলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে নেটওয়ার্কে সচল হবে।

তবে ফোন সচল হওয়ার ১০ দিনের মধ্যেই ওই মোবাইল হ্যান্ডসেট নিবন্ধন করতে হবে নির্ধারিত নিয়ম অনুসারে। তাতে ওই সেট ব্যবহারে কোনো সমস্যা হবে না। তবে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নিবন্ধন করা না হলে সেটি অবৈধ হিসেবে ধরে নেওয়া হবে এবং বিষয়টি গ্রাহককে এসএমএসের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে।

বিদেশ থেকে আনা মোবাইল ফোন সেট নিবন্ধন করা যাবে অনলাইনে, মোট চার ধাপে। আবার মোবাইল অপারেটরের কাস্টমার কেয়ার সেন্টারে গিয়েও এই সেবা নেওয়া যাবে।

অনলাইনে নিবন্ধনের জন্য এই চারটি ধাপ অনুসরণ করতে হবে

১. শুরুতেই www.neir.btrc.gov.bd লিংকে গিয়ে একটি ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে।

২. একই পোর্টালের ‘স্পেশাল রেজিস্ট্রেশন’ সেকশনে গিয়ে মোবাইল সেটের আইএমইআই নম্বরটি দিতে হবে।

৩. এরপর প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের ছবি বা স্ক্যান কপি (যেমন— ভিসা, ইমিগ্রেশন তথ্যাদি, কেনার রশিদ ইত্যাদি) আপলোড করে সাবমিট বাটনে চাপ দিতে হবে।

৪. মোবাইল হ্যান্ডসেটটি বৈধ হলে নিবন্ধিত হয়ে যাবে স্বয়ংক্রিয়ভাবে। অবৈধ বলে বিবেচিত হলে এসএমএস দিয়ে গ্রাহককে জানিয়ে দেওয়া হবে।

তবে পরীক্ষামূলক সময়ের জন্য ওই হ্যান্ডসেট তিন মাস চালু থাকবে। এই সময়ের মধ্যেও সেটা বৈধ বলে বিবেচিত না হলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অন্যদিকে বর্তমানে ব্যবহার করা যে কোনো মোবাইল হ্যান্ডসেট বৈধ কিনা, সেটাও জানা যাবে কয়েকটি ধাপ অনুসরণ করেএগুলো হচ্ছে—

১. মোবাইল ফোনসেট থেকে ডায়াল করুন *১৬১৬১# নম্বরে।
২. স্ক্রিনে দেখানো অপশন থেকে ‘স্ট্যাটাস চেক’ অপশন সিলেক্ট করুন।
৩. অটোমেটিক বক্স এলে মোবাইল ফোন সেটের ১৫ ডিজিটের আইএমইআই নম্বরটি লিখে পাঠিয়ে দিন।
৪. ‘হ্যাঁ’ বা ‘না’ অপশনের একটি অটোমেটিক বক্স এলে ‘হ্যাঁ’ সিলেক্ট করে নিশ্চিত করুন।
৫. ফিরতি এসএমএসের মাধ্যমে ব্যবহৃত মোবাইল মোবাইল ফোন সেটের বর্তমান অবস্থা জানিয়ে দেওয়া হবে।

এছাড়া neir.btrc.gov.bd ওয়েবসাইটে গিয়ে সিটিজেন পোর্টাল অথবা মোবাইল অপারেটরের কাস্টমার কেয়ার সেন্টারে গিয়েও এই সেবা নেওয়া যাবে।

যেভাবে ফোনের আইএমইআই নম্বরটি খুঁজে পাবেন—
আপনার ফোন থেকে *#06# সংখ্যাটি লিখে ডায়াল করুন। কিছুক্ষণের মধ্যে আইএমইআই নম্বরটি প্রদর্শিত হবে।

হেল্পলাইন
এনইআইআর সম্পর্কিত কোনও বিষয়ে জানার প্রয়োজন হলে বিটিআরসি’র হেল্প ডেস্ক নম্বর ১০০ অথবা মোবাইল অপারেটরের কাস্টমার কেয়ার নম্বর ১২১-এ ডায়াল করে এবং অপারেটরগুলোর কাস্টমার কেয়ার সেন্টার থেকে জানা যাবে।

,