সৌদিতে প্রবাসী যুবককে জবাই করে হত্যা

সৌদি আরবে নেওয়ার পর আকামা না হওয়ার অপরাধে দেশটির দাম্মাম প্রবাসী রাফিজুল ইসলাম ওরফে বাবুকে (২৬) ছুরিকাঘাতে হত্যা করে নগদ টাকা ও মালামাল নিয়ে পালিয়ে ঘাতক মনির।

রাফিজুল ইসলাম ওরফে বাবু রাজবাড়ী সদর উপজেলার দাদশী ইউনিয়নের আগমাড়াই গ্রামের ফজের সরদারের ছেলে।

মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) সকালে নিহত রাফিজুল ইসলাম ওরফে বাবুর বোন লাভলী আক্তার ও তানিয়া বলেন, গত রোববার (২৪ এপ্রিল) বেলা ১১টার দিকে পাশের বাড়ির আফসার সরদারের স্ত্রী জহিরন বেগম বাড়িতে আসে। সে বলে তার জামাতা মনির বাবুকে মেরে ফেলবে, তোমরা কথা বলে তার সঙ্গে ঝামেলা শেষ করো।

এ কথা শুনেই মোবাইল ফোনে বাবুর মা হাজরা বেগম ও বোনরা কথা বলার সময় ছুরি দিয়ে হত্যা করে নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ও অন্যান্য মালামাল নিয়ে পালিয়ে যায় বলে জানতে পেরেছি।

আমরা হত্যাকারী মনিরের ফাঁসি চাই। মরদেহ দেশে আনতে সরকারের সহযোগিতা কামনা করি।

নিহতের চাচা লিটন বলেন, রাজবাড়ী সদর উপজেলার পাচুরিয়া ইউনিয়নের মাধবদিয়া গ্রামের আলাই প্রামাণিকের ছেলে মনির প্রামাণিককে সৌদি আরবে আড়াই মাস আগে নেয়। তার আকামা না হওয়ায় সে কারণে ক্ষিপ্ত হয়ে হত্যা করেছে। মনিরের শ্বশুরবাড়ির লোকজন ঘরে তালা দিয়ে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে গেছে।

সৌদি আরবে অবস্থানরত খুলনার বাসিন্ধা রিয়াজুল খান শওকত বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আমি বাংলাদেশ থেকে খবর পেয়ে দাম্মামে আসি। এখন ওই ঘটনাস্থলে এসেছি।

রাফিজুল ইসলাম ওরফে বাবুকে ছুরি দিয়ে কান থেকে গলা পর্যন্ত ঢুকিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে নগদ টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে পালিয়েছে। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করেছে।

গালফ বাংলার হোয়াটসঅ্যাপে এড হোন এখানে ক্লিক করে

আজকের আরও খবর

আরটিভি

Loading...
,