স্ত্রীর পরকীয়ায় সর্বস্বান্ত সৌদি প্রবাসী

কক্সবাজারের টেকনাফ পৌরসভা ১ নং ওয়ার্ড নাইট‍্যংপাড়া এলাকার মোহাম্মদ ইউছুফের ছেলে সৌদি প্রবাসী মোহাম্মদ ফারুক স্ত্রী রীপা আক্তারের পরকীয়ায় তার কষ্টার্জিত টাকা, জমি ও বাড়ি হারিয়ে এখন সর্বস্বান্ত।

জানা যায়, জীবন জীবিকার তাগিদে মোহাম্মদ ফারুক দীর্ঘদিন ধরে সৌদি আরবে আছেন।

গত ২০১৪ সালে দেশে এসে কক্সবাজার জেলার রামু তুলা বাগান এলাকার মীর আহমদের মেয়ে রিপা আক্তারকে ইসলামী শরিয়ত মোতাবেক ৬ লাখ টাকা কাবিন ও ২ ভরি স্বর্ণ দেনমোহর দিয়ে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। বিয়ের পরে কয়েক বছর তাদের দাম্পত্য জীবন সুখে কাটে।

বিয়ের কিছুদিন পরে প্রবাসী ফারুক সংসারের সুখের আশায় আবার সৌদি আরবের পবিত্র মক্কা নগরীতে ফিরে যান। কিছুদিন পর তার কষ্টার্জিত টাকা দিয়ে জমি কিনে সে জমিতে বাড়ি নির্মাণ করে দেন প্রিয়তমা স্ত্রীকে। স্ত্রী রীপা আক্তারকে ভালোবেসে প্রতিমাস শেষে সঞ্চিত টাকা স্ত্রীর জন্য পাঠিয়ে দেন।

প্রবাসী ফারুক জানান, বিয়ের পর থেকে আজ পর্যন্ত প্রায় ১৮ লাখ টাকার ড্রাফট পাঠিয়েছি।বিয়ের দুই বছর পর থেকে তার স্ত্রী রীপা আক্তারের চলাফেরায় পরিবর্তন দেখা যায়। এক পর্যায়ে রীপা আক্তার বেপরোয়া হয়ে নোয়াখালী জেলার জাফর আলম নামের এক লোকের সাথে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্কে লিপ্ত হওয়ার খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে।

একদিন প্রেমিকের সাথে রীপা আক্তারকে শারীরিক মেলামেশা ও আপত্তিকর অবস্থায় হাতেনাতে ধরে ফেলে ফারুকের পরিবার। বারংবার চেষ্টা করেও তাদের অবৈধ মেলামেশা বন্ধ করতে পারেনি বরং সমাজ ও এলাকার মানুষকে ফাঁকি দিয়ে আরও বেপরোয়া হয়ে উঠে রীপা আক্তার।

প্রবাসী ফারুক ও তার পরিবারের মান সন্মান রক্ষার্থে স্ত্রী রীপা আক্তারকে সৌদি আরবের মক্কায় নিয়ে যায়। সেখানে ১১ মাস জীবন যাপনের পর সে আবার দেশে ফিরে আসে।

ফিরে আসার পর আবারও সেই আগের প্রেমিক জাফর আলমের সাথে এলাকার কাউকে তোয়াক্কা না করে প্রকাশ্যে মেলামেশা করে আসছে।

প্রবাসী ফারুক অনেক বুঝানোর পরেও অবাধ‍্য স্ত্রী তার সাথে প্রতারণা করে আসছে এবং বর্তমানে তার সাথে কোন ধরনের যোগাযোগ করছে না বলে কেঁদে কেঁদে জানান প্রবাসী ফারুক।

এ বিষয়ে প্রবাসী ফারুকের পিতা মোহাম্মদ ইউছুফ পুত্রবধূ রীপা আক্তারকে দেখতে গেলে একজন শীর্ষ সন্ত্রাসী দ্বারা মারধর করে হেনস্তা করেন বলে জানান এবং এ বিষয়ে কোন পদক্ষেপ নিলে প্রাণে মেরে ফেলবে বলে হুমকি ধমকি দিয়ে দিয়ে তাড়িয়ে দেয়।

স্ত্রীর অবৈধ পরকীয়ায় প্রবাসী ফারুকের কষ্টার্জিত টাকা, জমি ও বাড়ি হারিয়ে এখন সর্বস্বান্ত। মানসিক টেনশনে প্রবাসী ফারুক এখন পাগল প্রায় হয়ে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় রয়েছেন বলে জানান তার পিতা মোহাম্মদ ইউছুফ।

যেকোন মুহূর্তে সে আত্মহত্যা করে প্রাণনাশ করবে এমন ধারণা করছেন প্রবাসী ফারুকের পরিবার। তাই সংশ্লিষ্ট এলাকার প্রশাসন ও দেশবাসীর কাছে এর সুস্থ বিচার দাবি করছেন প্রবাসী ফারুকের পরিবার।

গালফ বাংলার হোয়াটসঅ্যাপে এড হোন এখানে ক্লিক করে

আজকের আরও খবর

গালফ বাংলা

Loading...
,