স্বপ্নের ফাইনালে মুখোমুখি ব্রাজিল বনাম আর্জেন্টিনা

বাঙালি ফুটবল সমর্থকদের এর থেকে ভালো সকাল আর কীই বা হতে পারে! কোপা আমেরিকার ফাইনালে মুখোমুখি হতে চলেছে ব্রাজিল এবং আর্জেন্টিনা।

আজ কলম্বিয়াকে পেনাল্টি শুট আউটে পরাস্ত করল মেসি ব্রিগেড। ম্যাচের ফলাফল : আর্জেন্টিনা : ১ (৩) এবং কলম্বিয়া : ১ (২)

ম্যাচের প্রথমার্ধে মাত্র সাত মিনিটের মাথায় লাউতারো মার্টিনেজের গোল এগিয়ে দেয় আর্জেন্টিনাকে। এছাড়া প্রথম ৪৫ মিনিটে আর কোনও দলই গোল করতে পারেনি। শুরুর দিকে গোল, অবশ্যই আর্জেন্টিনার আত্মবিশ্বাসকে অনেকটা বাড়িয়ে দিয়েছিল।

সেটা তাঁদের পাস বাড়ানোর নৈপুণ্য়েই চোখে পড়ছিল। ম্যাচের প্রথমার্ধে কলম্বিয়া সেভাবে আর্জেন্টিনার রক্ষণে দাঁত ফোটাতে পারেনি।

একথা অস্বীকার করার জায়গা নেই যে আজকের ম্যাচে শুরুটা একেবারে ভালো করেনি কলম্বিয়া। কিন্তু, ম্যাচের বয়স যত বেড়েছে, তারা এই ম্যাচে ফিরে আসার চেষ্টা করেছে। ব্যারিয়োস এবং মিনা গোল করার সুযোগ তৈরি করলেও, শেষপর্যন্ত আর সমতা ফেরাতে পারেননি।

ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে কলম্বিয়া যে আক্রমণের ঝাঁঝ আরও বাড়াবে তা নিয়ে কোনও সন্দেহ ছিল না। কারণ এই ম্যাচে তারাও ফেরত আসতে চেয়েছিল। সেক্ষেত্রে কুয়াদ্রাদোকে একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা গ্রহণ করতেই হত।

অন্যদিকে লা অ্যালবেসেলেস্তে ব্রিগেড যে নিজেদের ঝুলিতে একটামাত্র গোল নিয়ে একেবারে খুশি ছিল না, সেটাও তাঁদের চোখেমুখে বেশ স্পষ্ট ছিল। এই পরিস্থিতিতেই শুরু হয় দ্বিতীয়ার্ধের খেলা।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই আহত হলেন লিওনেল মেসি। ফ্র্যাঙ্ক ফাবরার ট্যাকলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। রেফারি সঙ্গে সঙ্গে খেলা থামাতে বাধ্য হন। প্রশ্ন উঠতে শুরু করে, ফাইনালে কি অক্ষত অবস্থায় পৌঁছতে পারবে আর্জেন্টিনা?

তবে চিকিৎসকদের সুশ্রুষায় কিছুক্ষণের মধ্যেই উঠে দাঁড়ান মেসি। সঙ্গে সঙ্গে বাঙালি নীল-সাদা সমর্থকেরা স্বস্তির নিঃশ্বাস ছাড়েন। ৫৪ মিনিটে আবারও ফিজিক্যাল হয়ে ওঠেন আবারও ফাবরা। লক্ষ্য সেই মেসি। এবার কিন্তু রেফারি সরাসরি হলুদ কার্ড দেখিয়ে দিলেন।

যে আশঙ্কা করা হচ্ছিল, সেটাই সত্যি হল। একটা গোলের লিড কখনই কোনও দলকে সুরক্ষিত রাখতে পারে না। সেটা আরও একবার প্রমাণ করে দিলেন কলম্বিয়ার লুই ডিয়াজ।

৬১ মিনিটে তাঁর ডান পায়ের ইন স্টেপে হালকা পুশ দলের জন্য সমতা ফিরিয়ে আনল। অবিশ্বাস্য একটা গোল দেখল গোটা ফুটবল বিশ্ব। তবে এই গোলের জন্য আর্জেন্টিনার রক্ষণভাগের দায় ১০০ শতাংশ। পেজেলা বলটাকে ঠিকঠাক ক্লিয়ার করতে পারলে, হয়ত পোর্তো উইঙ্গার এই গোলটা করতে পারতেন না।

৬৭ মিনিটের মাথায় গঞ্জালেসকে তুলে নিয়ে অবশেষে অ্যাঞ্জেল দি মারিয়াকে মাঠে নামালেন লুই স্কালোনি। গত ম্যাচে দি মারিয়া মাঠে নামার পরেই ম্যাচের গতি অনেকটা বেড়ে গিয়েছিল।

আজও তেমনই একটা ম্যাজিক আশা করছিলেন আর্জেন্টিনা সমর্থকেরা। মাঠে নামার সঙ্গে সঙ্গেই প্রায় গোল করার একটা সুযোগ পেয়েছিলেন দি মারিয়া। কিন্তু, অল্পের জন্য তিনি সেই সুযোগ মিস করেন।

৮২ মিনিটে ভাগ্য ভালো ছিল না মেসির। দি মারিয়া থেকে বল পেয়েছিলেন আর্জেন্টিনার বরপুত্র। তিনি জ্বলে ওঠেন। তবে বলটা গোলপোস্টে লেগে ফিরে আসে। মেসির পঞ্চম গোলটা এল না।

ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে কলম্বিয়া যে দুরন্ত কামব্যাক করেছে, তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। নির্ধারিত সময়ে ১-১ গোলে ড্র করে আর্জেন্টিনা এবং কলম্বিয়া। ম্যাচ গড়ায় পেনাল্টি শুট আউটে।

আসুন দেখে নেওয়া যাক পেনাল্টি শুট আউটের ফলাফল :

আর্জেন্টিনা :

লিওনেল মেসি – গোল (১-১)
রডরিগো ডি পল – গোল মিস (১-১)
পারদেশ – গোল (২-১)
লাউতারো মার্টিনেজ – গোল (৩-২)

কলম্বিয়া :

কুয়ান কুদরাদো – গোল (১-০)
ডেভিনসন স্যাঞ্চেজ -গোল মিস (১-১)
ইয়ারে মিনা – গোল (১-১)
মিগুয়েল বোরহা – গোল (২-২)
এডউইন কার্ডোনা – গোল মিস (২-৩)

,