১৫ হাজার কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ চেয়ে ফেসবুকের বিরুদ্ধে রোহিঙ্গাদের মামলা

ঘৃণামূলক বক্তব্য ছড়ানোর অনুমতি দেওয়ার অভিযোগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে প্রায় ১৫ হাজার কোটি ডলারের ক্ষতিপূরণ মামলা করেছে রোহিঙ্গারা।

গতকাল সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার আদালতে রোহিঙ্গাদের পক্ষের আইনজীবীরা মামলাটি দায়ের করেন।

মামলায় ফেসবুক কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে গণহত্যায় সম্পৃক্ততার অভিযোগ আনা হয়। বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে এমনটি বলা হয়েছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, যুক্তরাজ্য এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বহু সংখ্যক রোহিঙ্গা শরণার্থী ফেসবুকের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে,  ২০১৭ সালে বৌদ্ধ সংখ্যাগরিষ্ঠ মিয়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলমানদের দমনে সামরিক অভিযান চালানো হয়। ওই সময় আনুমানিক ১০ হাজার  হত্যা করা হয়েছিল।

তখন বিভিন্ন ছবি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। মিয়ানমারের সেনাদের অভিযানের পর রোহিঙ্গা মুসলমানরা সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে চলে আসে।  যে সব রোহিঙ্গা মুসলমান এখনো মিয়ানমারে আছে তাঁদেরকেও নাগরিকত্ব দেওয়া হয়নি।

মামলায় অভিযোগ করা হয়, ফেসবুক অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হতে উসকানিমূলক ভিডিও, সহিংসতা এবং অপপ্রচারের ভিডিও ও তথ্য সংবলিত পেজগুলোকে ব্যবহারকারীদের দেখতে উৎসাহিত করেছে।

এতে ঘৃণ্য অপপ্রচার আরও বেড়েছে ।  বাস্তবতা হলো ফেসবুক বৃদ্ধি, ঘৃণা, বিভাজন এবং ভুল তথ্য ছড়িয়ে লাখ লাখ রোহিঙ্গাদের জীবনকে ধ্বংস করে দিয়েছে।

এই মামলা নিয়ে ফেসবুকের পক্ষ থেকে কোনো মন্তব্য এখনো করা হয়নি।   এর আগে ফেসবুকের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, মিয়ানমারে ঘৃণামূলক বক্তব্য প্রতিরোধে তারা ধীর গতিতে এগিয়েছিল।

Loading...
,