শনিবার ৩০শে মে ২০২০ |

ইয়েমেনের ব্যাপারে রিয়াদের তীব্র সমালোচনা করল সৌদি সমর্থক গ্রুপও

 বুধবার ৬ই মে ২০২০ রাত ১১:৩১:৫৫
ইয়েমেনের

দক্ষিণ ইয়েমেনে প্রচণ্ড সংঘর্ষ অব্যাহত থাকায় যে মানবিক বিপর্যয় সৃষ্টি হয়েছে তাতে হুথি সমর্থিত ন্যাশনাল স্যালভেশন সরকার ও সৌদি সমর্থক পদত্যাগকারী মানসুর হাদির সরকার উভয়ে সৌদি নীতির তীব্র সমালোচনা করেছে।

 সৌদি আরব ইয়েমেনে একাধিক সংকটে জড়িয়ে পড়েছে। পাঁচ বছর অতিক্রান্ত হলেও তারা ইয়েমেনের বিরুদ্ধে আগ্রাসন বন্ধ করেনি এবং রিয়াদ কার্যত ইয়েমেনের চোরাবালিতে আটকা পড়ে অনেকটাই দুর্বল হয়ে পড়েছে। বিপরীতে ইয়েমেনের জনপ্রিয় আনসারুল্লাহ বাহিনীর ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন শক্তি বহুগুণে বেড়েছে এবং তারা সৌদি আরবের জন্য বড় ধরনের হুমকিতে পরিণত হয়েছে।

অন্যদিকে, সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের মধ্যে তীব্র মতপার্থক্য দেখা দিয়েছে। শুধু যে আবুধাবি ও রিয়াদের মধ্যে রাজনৈতিক বিরোধ চলছে তাই নয় একইসঙ্গে যুদ্ধের ময়দানেও সৌদি সমর্থিত মানসুর হাদি সরকার ও আমিরাতপন্থী অন্তর্বর্তী পরিষদের মধ্যেও তীব্র সংঘাত চলছে। বিশেষ করে দক্ষিণ ইয়েমেনে আমিরাতপন্থী অন্তর্বর্তী পরিষদ তাদের নিয়ন্ত্রিত এলাকায় স্বায়ত্বশাসন ঘোষণা করায় রিয়াদের সঙ্গে তাদের বিরোধ চরমে উঠেছে এবং তারা একে অপরের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বীতে পরিণত হয়েছে। যদিও প্রথম দিকে রিয়াদ এই পরিষদকে সমর্থন দিয়েছিল।

 সৌদি সরকারের প্রতি ইয়েমেনের হুথি সমর্থক 'ন্যাশনাল স্যালভেশন সরকারের সমালোচনার অনেক কারণ রয়েছে আর তা হচ্ছে সৌদি আরব একদিকে যুদ্ধ অব্যাহত রেখেছে এবং যুদ্ধবিরতি চুক্তিও মানছে না। অন্যদিকে হামলা চালিয়ে ইয়েমেনের সমস্ত অবকাঠামো ধ্বংস করে দিচ্ছে যেকারণে সেখানে মানবিক বিপর্যয় সৃষ্টি হয়েছে।

 কিন্তু হুথিদের পাশাপাশি সৌদি সমর্থক হিসেবে পরিচিত মানসুর হাদির পদত্যাগী সরকারও রিয়াদের সমালোচনা করায় বিস্ময়ের সৃষ্টি হয়েছে। পদত্যাগী সরকারের কোনো কোনো কর্মকর্তা সৌদি আরবের বিরুদ্ধে ক্রমেই সোচ্চার হচ্ছেন এবং তারা দক্ষিণ ইয়েমেনে আমিরাত সমর্থক অন্তর্বর্তী পরিষদের প্রভাব বিস্তারের জন্য রিয়াদের ভুল নীতিকে দায়ী করেছেন। আমিরাত সমর্থকরা গত মাসে মানসুর হাদির পদত্যাগী সরকারের ব্যর্থতা ও দুর্বল পরিচালনার অভিযোগ তুলে এডেনে স্বায়ত্বশাসন ঘোষণা করেছে।

 মানসুর হাদি সরকারের সাবেক উপপ্রধানমন্ত্রী আহমাদ আল মাসিরি মনে করেন, আমিরাত সমর্থকদের কর্মকাণ্ডের ব্যাপারে রিয়াদ রিয়াদের নীরবতার কারণেই তারা স্বায়ত্বশাসনের ঘোষণা দিতে পেরেছে। কারণ রমজান শুরুর আগে সৌদি সরকার এডেনে সেনা অভিযান না চালানোর জন্য মানসুর হাদির প্রতি  আহ্বান জানিয়েছিলেন। এ আহ্বানে মানসুর হাদির সমর্থন না থাকলেও তিনি তা মেনে নিয়েছিলেন। এখন মনে হচ্ছে, আমিরাতপন্থীদের স্বশাসন ঘোষণার প্রতি সৌদি আরবেরও সমর্থন রয়েছে এবং রিয়াদ মূলত আবুধাবিকে একটা সুযোগ দিল।

আরও পড়ুন:

মধ্যপ্রাচ্য থেকে ফিরছেন ২৮ হাজারের বেশি প্রবাসী    

পশ্চিম তীরকে ইসরায়েলি ভূখণ্ড হিসেবে স্বীকৃতি দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র  

সানাইয়ায় ঢুকতে বা বের হতে যেসব শর্ত মানতে হবে    

গালফবাংলায় প্রকাশিত যে কোনো খবর কপি করা অনৈতিক কাজ। এটি করা থেকে বিরত থাকুন। গালফবাংলার ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।
খবর বা বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন: editorgulfbangla@gmail.com

সংশ্লিষ্ট খবর