বৃহঃস্পতিবার ২৬শে নভেম্বর ২০২০ |

বাহরাইন-ইসরায়েল কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন

 বুধবার ২১শে অক্টোবর ২০২০ সকাল ০৮:২৬:১১
বাহরাইন-ইসরায়েল

ইসরায়েল প্রতিষ্ঠার পর চতুর্থ আরব দেশ হিসেবে তাদের স্বীকৃতি দিল বাহরাইনছবি: রয়টার্স

বাহরাইন ও ইসরায়েল আনুষ্ঠানিকভাবে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করেছে। বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

গতকাল রোববার বাহরাইনের রাজধানী মানামায় এ-সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। চুক্তিতে মধ্যস্থতা করে যুক্তরাষ্ট্র।

১৯৪৮ সালে ইসরায়েল প্রতিষ্ঠার পর মধ্যপ্রাচ্যের চতুর্থ আরব দেশ হিসেবে বাহরাইন তাদের স্বীকৃতি দিল। বাহরাইনের আগে সংযুক্ত আরব আমিরাত, মিসর ও জর্ডান ইসরায়েলকে স্বীকৃতি দেয়।

অধিকাংশ আরব দেশ দশকের পর দশক ধরে ইসরায়েলকে বয়কট করে আসছে। এ ব্যাপারে তাদের অবস্থান হলো ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠন ছাড়া ইসরায়েলের সঙ্গে কোনো সম্পর্ক নয়। কিন্তু কিছু আরব দেশ সেই নীতি থেকে হঠাৎ করে সরে এল। তারা চিরশত্রু দেশটির সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তুলছে।

ইসরায়েলের সঙ্গে আরব দেশগুলোর কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের এই পদক্ষেপের নিন্দা জানিয়েছে ফিলিস্তিন। তারা আরব দেশগুলোর এই পদক্ষেপকে ‘পিঠে ছুরি মারা’ হিসেবে বর্ণনা করেছে।

চুক্তি স্বাক্ষর উপলক্ষে গতকাল সন্ধ্যায় বাহরাইনের রাজধানী মানামায় একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। পূর্ণ কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনে সেই অনুষ্ঠানে বাহরাইন ও ইসরায়েলের কর্মকর্তারা যৌথ চুক্তিপত্রে সই করেন।

বাহরাইন ও ইসরায়েল এখন পরস্পর দূতাবাস খুলবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সই হওয়া যৌথ চুক্তিতে ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংকট-সংঘাতের কোনো উল্লেখ নেই। ইসরায়েলের গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে এমনটাই বলা হয়েছে।

চুক্তি সইয়ের পরে বাহরাইনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল লতিফ বিন রশিদ আল-জায়ানি বলেছেন, বাহরাইন ও ইসরায়েলের মধ্যে প্রতিটি ক্ষেত্রে ফলপ্রসূ দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা আশা করছেন তিনি।

বাহরাইনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠার আহ্বান জানান। তিনি ফিলিস্তিন সংকটের দুই রাষ্ট্রের সমাধানের কথা বলেন।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শেষ হওয়ার তিন বছর পর ১৯৪৮ সালে ব্রিটিশশাসিত ফিলিস্তিনে ইহুদি রাষ্ট্র ইসরায়েলের জন্ম হয়। পশ্চিমা বিশ্বের বানানো এই রাষ্ট্রকে কখনো মেনে নেয়নি আরবরা।

১৯৫৬, ১৯৬৭ ও সবশেষ ১৯৭৩ সালে আরব রাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে যুদ্ধ হয় ইসরায়েলের। প্রতিবারই আরবরা পরাজিত হয়। এরপর থেকেই ইহুদিদের কাছে জমি হারাতে বসে ফিলিস্তিনিরা। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় দুটি রাষ্ট্র গঠনের মাধ্যমে সংঘাত মেটানোর চেষ্টা করলেও তা এখনো সফলতার মুখ দেখেনি।

ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক প্রতিষ্ঠায় আরব দেশগুলো প্রধান তিনটি শর্ত দিয়েছিল। সেগুলো হলো যুদ্ধের সময় আরব দেশগুলোর দখল করা জমি ছেড়ে দেওয়া, ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠন ও স্বীকৃতি এবং ফিলিস্তিনের দখল করা জমি হস্তান্তর। সেই শর্তের কোনোটা পূরণ না হওয়ার পরও আরব দেশগুলো ইহুদি রাষ্ট্রটির সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তুলছে।

১ ডিসেম্বর পর্যন্ত কাতারে হোটেল কোয়ারেন্টিন বাধ্যতামূলক

কাতারের সব খবর পেতে আজই লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন এই পেজে

কাতারের আরও খবর

গালফবাংলায় প্রকাশিত যে কোনো খবর কপি করা অনৈতিক কাজ। এটি করা থেকে বিরত থাকুন। গালফবাংলার ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।
খবর বা বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন: editorgulfbangla@gmail.com

কাতার,কাতারের খবর,কাতার প্রবাসী,দোহা,দোহার খবর,আজকের কাতার,আজকের দোহা,কাতারের দোহা,দোহার নিউজ,কাতারের সংবাদ,কাতার প্রবাসীদের খবর,Qatar,Doha,Qatar News,Doha News,Today Qatar News,Qatar Bangladesh,Qatar Bangla News,Doha Bangla News,প্রবাস,প্রবাসীর খবর,প্রবাসের খবর

প্রথম আলো

সংশ্লিষ্ট খবর