বুধবার ৩রা মার্চ ২০২১ |

কাতারে অন্য কোম্পানিতে বৈধভাবে কাজের নিয়ম

কাতার |  সোমবার ১লা ফেব্রুয়ারি ২০২১ বিকাল ০৪:৩৫:০৭
কাতারে

কাতারে যে কোনো কোম্পানির ভিসায় আসার পর যদি সাময়িকভাবে অন্য কোম্পানিতে কাজ করতে কর্মী আগ্রহী হয়, এক্ষেত্রে দ্বিতীয় কোম্পানিতে স্পন্সরশিপ পরিবর্তন ছাড়া সাময়িকভাবে কাজ করতে হলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিতে হয়। এই অনুমতিকে ইআরা বলা হয়ে থাকে। 

প্রতিবারে সর্বোচ্চ ছয় মাস মেয়াদে এই অনুমতি নেওয়া যেতে পারে। ছয় মাস পার হওয়ার পর এটি আবারও নবায়ন করা যাবে।

মনে রাখতে হবে, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া কোনো কর্মী যদি নিজের কোম্পানি ছাড়া অন্য কোনো কোম্পানিতে কাজ করেন, তবে সেক্ষেত্রে কাতারের আইন অনুসারে মূল কোম্পানির নিয়োগকর্তাকে সর্বোচ্চ তিন বছরের জেল এবং সর্বোচ্চ ৫০ হাজার রিয়াল পর্যন্ত জরিামানা করা হতে পারে। কাজেই কখনোই মূল কোম্পানি ছেড়ে বিনা অনুমতিতে অন্য কোনো কোম্পানিতে কাজ করা উচিত নয়।

ধরা যাক, একজন কর্মী একটি কোম্পানিতে কাজ করছেন। এই কাজের পর অবসর সময়ে তিনি অন্য আরেকটি কোম্পানিতে কাজ করতে চান। সেক্ষেত্রেও সরকারি কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে অন্যত্র কাজ করার সুযোগ নেওয়া যাবে। তবে এ ব্যাপারে সরকারি কর্তৃপক্ষের অনুমতি নেওয়ার আগে নিজের মূল কোম্পানির নিয়োগকর্তা বা মালিকের অনুমতি নিতে হবে।

উপরোক্ত বিষয়টি অনেকে জানেন না, আবার অনেকে জানলেও গুরুত্ব দেন না। ফলে দেখা গেছে, এক কোম্পানির ভিসায় আসার পর বিনা অনুমতিতে অন্য কোম্পানিতে দিনের পর দিন কাজ করে চলেছেন অনেক কর্মী। এই পুরো বিষয়টি বেআইনি এবং কাতারের আইনে অবৈধ। 

ফলে যখন এমন কর্মী নিজের কোম্পানি ছাড়া অন্য কোম্পানিতে কাজের সময় ধরা পড়েন, তখন ওই কর্মী যেমন সাজার সম্মুখীন হবেন, পাশাপাশি কর্মীর মূল কোম্পানির নিয়োগকর্তা বা মালিকও জেল ও জরিমানার মুখোমুখি হবেন।

কাজেই যে কোনো অবস্থায় নিজের কোম্পানি ছেড়ে বাইরে অন্য কোনো কোম্পানিতে কাজ করতে হলে অবশ্যই ইআরা সম্পর্কিত কাগজপত্র তৈরি করে সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিতে হবে। এর ফলে একদিকে কর্মী যেমন নিরাপদ ভাবে অন্যত্র কাজের সুযোগ পাচ্ছেন, তেমনিভাবে কর্মীর মূল কোম্পানিও সব ধরণের বেআইনি কর্মকান্ড থেকে মুক্ত থাকছে।

দেখা গেছে, অনেকে বাইরে কাজের এই অনুমতিপত্র নেওয়ার পর দীর্ঘকাল ধরে অন্য কোম্পানিতে কাজ করছেন, কিন্তু অনুমতিপত্রটি আর নবায়ন করছেন না। এটিও কাতারের আইন অনুসারে অবৈধ। 

প্রতি ছয় মাস পর যখন অনুমতিপত্রের মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে, তখন পুনরায় সেটি নবায়ন করিয়ে নিতে হবে

তবে এক্ষেত্রে মনে রাখা ভালো, যদি কর্মী দীর্ঘস্থায়ীভাবে নতুন কোম্পানিতে কাজে আগ্রহী হয়ে থাকেন, তবে সেক্ষেত্রে ইআরা বা অনুমতিপত্র না নিয়ে একেবারে স্পন্সরশিপ পরিবর্তন করে নতুন কোম্পানিতে কাজে যোগ দিতে পারেন। 

তবে সেক্ষেত্রে প্রথম কোম্পানির সঙ্গে চুক্তিপত্র বাতিল বলে গণ্য হবে এবং নিয়োগকর্তার সম্মতি সাপেক্ষে তিনি অন্য কোম্পানিতে যোগ দিতে পারেন।

জীবন জীবিকার তাগিদে যারা কাতারে আসেন, তাদের অনেকে একটু ভালো আয়ের আশায় কিংবা বাড়তি আয়ের আশায় অন্য কোম্পানিতে কাজ করতে আগ্রহী হতেই পারেন। 

এই স্বাভাবিক বিষয়টি মাথায় রেখে কাতারের শ্রম আইনে যে সুযোগ রাখা হয়েছে, সেভাবেই এটি গ্রহণ করা উচিত।

আরও পড়ুন

কাতার প্রবাসীদের জন্য আরও কিছু পরামর্শ

  1. কাতারে কোনো প্রবাসী মারা গেলে কী করবেন?

  2. কাতারে কফিল খুঁজে না পেলে কী করবেন?

  3. জরুরী সেবায় ছুটে চলা গাড়ি দেখলে যা করণীয়

  4. কাতারে কাজ করেও বেতন পাচ্ছেন না?

  5. কাতারে নিজের আইডি দিয়ে অন্যের যে উপকার করবেন না


গালফবাংলায় প্রকাশিত যে কোনো খবর কপি করা অনৈতিক কাজ। এটি করা থেকে বিরত থাকুন। গালফবাংলার ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।
খবর বা বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন: editorgulfbangla@gmail.com

কাতার,দোহা,কাতারের খবর,দোহার খবর,প্রবাসী,প্রবাস,পরবাস,প্রবাসের বাংলা খবর,কাতারের নিউজ,কাতারের সংবাদ,কাতারের বাংলা খবর,কাতারের বাংলা সংবাদ,কাতারের আপডেট,কাতারের অবস্থা,কাতার প্রবাসী,আজকের কাতার,আজকের দোহা,কাতারের দোহা,দোহার নিউজ,কাতার প্রবাসীদের খবর,কাতার আজকের খবর,কাতার প্রবাসী নিউজ,গালফ নিউজ,বাংলা কাতার,কাতার খবর,Qatar,Doha,Qatar Bangla News,Doha News,Qatar Bangla,Middle east News,Qatar Bangladesh News,Probashi,Gulf,Gulf News,Gulf Topic,Gulf Headlines,Qatar News,Today Qatar News,Qatar Bangladesh,Doha Bangla News

তামিম রায়হান

কাতার প্রবাসী লেখক ও সাংবাদিক

সংশ্লিষ্ট খবর