বৃহঃস্পতিবার ২৮শে জানুয়ারী ২০২১ |

কাতারে নিহত প্রবাসীর ৪৬ লাখ টাকা নিয়ে আরেক প্রবাসীর প্রতারণা

কাতার |  সোমবার ৯ই নভেম্বর ২০২০ সকাল ০৯:৩১:৩৬
কাতারে

কাতারে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত এক প্রবাসীর ইন্স্যুরেন্সের প্রায় ৪৬ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে এক প্রতারক। বিয়ানীবাজারের বাসিন্দা আবু তাহের নামের ওই ব্যক্তির ইন্স্যুরেন্সের অর্থ জালিয়াতির ঘটনায় এরই মধ্যে বড়লেখার জাকির হোসেন নামের ওই প্রতারককে গ্রেফতার করা হয়েছে। 

ঘটনার প্রায় ২ বছর পর জালিয়াতির বিষয়টি উদঘাটন করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সি আই ডি)। ওই প্রতারক জাল-জালিয়াতির বর্ণনা দিয়ে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দীও দিয়েছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (আইও) ও সিআইডি’র পরিদর্শক আশরাফুল ইসলাম সিলেটের ডাককে বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এ প্রতারক চক্রের সঙ্গে জড়িত অন্যদেরকেও খোঁজা হচ্ছে।

হতভাগ্য পিতার সন্দেহ

সিআইডি ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, কাতারে দুর্ঘটনায় আবু তাহেরের মৃত্যুর পর স্থানীয় শ্রম ও জনশক্তি অফিসের লোকজন তাহেরের পরিবারকে ইন্স্যুরেন্সের টাকার খোঁজ দেন। এরপর নিহতের পিতা শাহাব উদ্দিন জনশক্তি অফিসের মাধ্যমে কাতারস্থ বাংলাদেশ এ্যাম্বেসীকে ২০১৮ সালের ৮ মে পাওয়ার অব অ্যাটর্নি বা আমমোক্তার নিযুক্ত করে পত্র দেন। 

সাথে নিহতের পিতা-মাতার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বরও দেয়া হয়। নিয়ম অনুযায়ী, বাংলাদেশ এ্যাম্বেসীর মাধ্যমে ইন্স্যুরেন্সের টাকা পাওয়ার কথা থাকলেও দীর্ঘদিনেও টাকার হদিস মিলছিল না। আর এতেই নিহতের পিতার সন্দেহ হয়। নিহতের পরিবার পুনরায় কাতারস্থ বাংলাদেশ দুতাবাসে পত্র দেন। এরপরই জানতে পারেন জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে ইন্স্যুরেন্সের ২ লাখ রিয়াল জাকির নিয়ে গেছে।

আদালতে মামলা দায়ের

বিভিন্ন মাধ্যমে বিষয়টি জেনে গত বছরের ২৪ ডিসেম্বর সিলেটের আমল গ্রহণকারী আদালতে নিহতের পিতা জাকিরের বিরুদ্ধে একটি দরখাস্ত মামলা করেন। এরপর আদালতের নির্দেশে গত ২ জানুয়ারি বিয়ানীবাজার থানায় মামলাটি রেকর্ড হয়। মামলা নং-০২। ধারা-৪০৬, ৪২০, ৪৬৭, ৪৬৮, ৩৪ দন্ডবিধি। 

থানা পুলিশের তদন্ত চলাকালে কিছু দিনের মধ্যেই মামলাটি সিআইডিতে প্রেরণ করেন আদালত। এরপর সিআইডি সিলেট জোনের পরিদর্শক আশরাফুল ইসলামকে মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়। তদন্ত চলাকালেই গোলাপগঞ্জের একটি নির্জন এলাকা থেকে জাকিরকে গ্রেফতার করে সিআইডি। 

সে বড়লেখা উপজেলার গোয়ালী গ্রামের মঈন উদ্দিনের পুত্র। কাতার থেকে গোপনে এসে গোলাপগঞ্জের কদমতলা ঘোষগাঁও এলাকায় আত্মগোপন করেছিল প্রতারক জাকির।

কাতারে চুরির অভিযোগে পুলিশের হাতে ধরা

আদালতে জালিয়াতির বর্ণনা

সিআইডি সূত্র জানায়, গ্রেফতারের পর সিআইডির জিজ্ঞাসাবাদে জাল-জালিয়াতির বর্ণনা দেয় জাকির। এরপর সিলেটের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নওরীন করিমের আদালতে ফৌজদারী কার্যবিধির ১৬৪ ধারার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেয় সে। ৮ পৃষ্ঠার জবানবন্দীতে সে জালিয়াতির বিস্তর বর্ণনা দেয়।

জাকির তার জবানবন্দীতে বলেন, ২০১৩ সালের শেষের দিকে কাতার যান। কফিল ৫টি ভিসা দিলে নোয়াখালীর রাশেদ, রংপুরের সাইফুল, বিয়ানীবাজারের আবু তাহের, বড়লেখার আলিম উদ্দিনকে কাতার নেন। একদিন কফিল জানায়, তাহের সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছে। আলীম উদ্দিন গাড়ী চালাচ্ছিল। 

কফিল লাশ বুঝিয়ে চলে যায়। লাশ হস্তান্তরের কাগজে তাহেরকে চাচাতো ভাই পরিচয়ে স্বাক্ষর করে জাকির। এরপর লাশ দেশে পাঠানো হয়। আলীম উদ্দিনকে বলি, তাহেরের পরিবারের পাওয়ার অব অ্যাটর্নী এনে দিতে। ২ লাখ রিয়াল ক্ষতিপূরণ দিতে রায় হয়। রায়ের পর আলীম উদ্দিনসহ পরামর্শ করি। এরপর ক্ষতিপূরণ বাবদ ইন্স্যুরেন্সের টাকা তোলা হয়। পরে জাকির দেশে চলে আসেন বলে জবানবন্দীতে উল্লেখ করেন।

ঘরে–বাইরে প্রতারণার ফাঁদে প্রবাসী শ্রমিকেরা

তাহেরের পরিচয়

বিয়ানীবাজার উপজেলার বড়দেশ গ্রামের শাহাব উদ্দিনের পুত্র আবু তাহের ছিলেন অবিবাহিত। দশম শ্রেণী পড়ুয়া তাহেরের ২ ভাই ও ২ বোন। পরিবারের সদস্য, পিতা-মাতার মুখে হাসি ফুটাতে ২০১৪ সালে কাতার যান আবু তাহের। সেখানে বেশ ভালোই চলছিল তার প্রবাস জীবন। 

২০১৮ সালের ২৮ এপ্রিল সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন রেমিট্যান্স যুদ্ধা তাহের। এরপর ১৫ মে তার লাশ দেশে আসে। তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। পুত্র শোকে এখনো বাকরুদ্ধ তাহেরের পিতা-মাতা।

নিহতের ভগ্নিপতি লুৎফুর রহমান জানান, ‘নিহত তাহেরের ইন্স্যুরেন্সের টাকা আত্মসাত করতে প্রতারক জাকির তার বোন ও বোন জামাইকে নিহত তাহেরের পিতামাতা বানিয়ে জাল-জালিয়াতির ডকুমেন্ট তৈরি করেন। প্রতারণা করে টাকা এনে বাড়ী-গাড়ী করে শিল্পপতি বনে যায়। আর নিজের প্রাপ্য থেকে বঞ্চিত হয় তাহেরের পরিবার।’

নিহতের স্বজনরা প্রতারক জাকির ও তার সহযোগীদের বিচার ও হাতিয়ে নেয়া টাকা ফেরত পাওয়ার দাবী জানিয়েছেন। 

সিআইডি’র বক্তব্য

সিআইডি সিলেট জোনের পরিদর্শক আশরাফুল ইসলাম সিলেটের ডাককে বলেন, এটি নিঃসন্দেহে একটি বড় ধরণের জালিয়াতি। সকল ডকুমেন্ট জাল করে সে পুরো টাকা তুলে বাংলাদেশ চলে আসে। তার কয়েক সহেযাগীও রয়েছে। প্রতারক জাকির তার জবানবন্দীতে প্রতারণার বিস্তারিত বর্ণনা করেছে। তার সহযোগীদেরকেও খোঁজা হচ্ছে বলে জানান এ সিআইডি।

কাতারের সব খবর পেতে ক্লিক করুন এখানে

কাতার ও কাতার প্রবাসীদের নিয়ে আরও কিছু খবর

গালফবাংলায় প্রকাশিত যে কোনো খবর কপি করা অনৈতিক কাজ। এটি করা থেকে বিরত থাকুন। গালফবাংলার ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।
খবর বা বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন: editorgulfbangla@gmail.com

কাতার,দোহা,কাতারের খবর,দোহার খবর,প্রবাসী,প্রবাস,কাতারের নিউজ,কাতারের সংবাদ,কাতারের বাংলা খবর,কাতারের বাংলা সংবাদ,প্রবাসীদের খবর,কাতার প্রবাসীদের খবর,Qatar,Doha,Qatar Bangla News,Doha News,Qatar Bangla

সিলেটের ডাক

সংশ্লিষ্ট খবর